খোলা রাস্তায় গোটা একটা বিড়ালকে গোগ্রাসে গিলছে বিশালাকার পাইথন, ভিডিও দেখে হাঁ নেটদুনিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদন: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বা সোশ্যাল মিডিয়া বর্তমান সময়ের এমন একটি প্লাটফর্ম যেখানে যে কোন ঘটনা বা জিনিস রীতিমতন ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে থাকে। এই সোশ্যাল মিডিয়া যেমন মানুষের জনপ্রিয়তাকে এক মুহূর্তেই বাড়িয়ে দিতে পারে, ঠিক তেমনভাবেই আকাশছোঁয়া কোন জায়গা থেকে তাকে নিচেও নামিয়ে আনতে পারে। শিশু থেকে বয়স্ক এখন কিন্তু সকলেই ইন্টারনেট জগতের বাসিন্দা হয়ে পড়েছেন।

এখানে অবসর বিনোদনের জন্য নাচ গান থেকে শুরু করে নানান ধরনের জিনিস দেখতে পাওয়া যায়। যদিও সোশ্যাল মিডিয়ার কিছু ক্ষতিকর দিক রয়েছে সেটাও মেনে নিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে যতই ক্ষতিকর দিক থাকুক না কেন সাধারণ মানুষের মধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার কমাবে এরকম সাধ্য কারুর নেই।। বরং দিন প্রতিদিন যেন এটা এক প্রকার আসক্তিতে পরিণত হচ্ছে বলা যায়। ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে ঘুমোতে যাওয়ার সময় পর্যন্ত সকলেই এখন নেট মাধ্যমে ঘুরতে পছন্দ করেন।

সোশ্যাল মিডিয়াতে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে জীবজন্তুদের নানান ধরনের ভিডিও ভাইরাল হয়ে থাকে। বিশেষ করে জীবজন্তুদের অদ্ভুত আচরণ নেট মাধ্যমে বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করে ‌।কখনও একাধিক ছাগলকে গাছে চড়তে দেখা যায়, আবার কখনও দেখা যায় কাঁকড়াকে সিগারেট ফুঁকতে। এই প্রকৃতির ভিডিও দেখে নেটিজেনদের কেউ অবাক হয়ে যান। তবে সম্প্রতি নেট মাধ্যমে এমন একটি দৃশ্য ভাইরাল হয়ে উঠেছে যা দেখে ভয় পেয়ে গিয়েছেন অনেকেই।

ভাইরাল এই ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে একটি ভয়াবহ পাইথন সাপ আস্ত বিড়ালকে গিলে নিয়েছে। যদিও পরে সেই বিড়ালকে উগলে দেয় সে। আপনারা সকলেই কমবেশি জানেন পাইথন সাপ কতটা ভয়াবহ‌। পৃথিবীর অন্যতম ভয়াবহ প্রজাতির সাপের মধ্যে রয়েছে এটির নাম। খুব সহজেই শিকারকে পেচিয়ে ধরে তাকে খাবার বানিয়ে নেয় এই পাইথন। তাই ভিডিওতে এই ধরনের পাইথন সাপের হাতে পড়েও বিড়ালের বেঁচে যাওয়ার ঘটনাটা বেশ দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে দর্শকদের।

বিড়ালটিকে দ্বিতীয়বার উগলে দেওয়ার দৃশ্যটা বেশ পছন্দ করেছেন দর্শকেরা।‘খাওসোদ ইংলিশ’ (Khaosod English)
নামের একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে এই ভিডিওটি ভাইরাল হয়ে উঠেছে। এখনো পর্যন্ত ১১ মিলিয়ন মানুষের ভিডিওটি দেখেছেন এবং ৪৮ হাজার মানুষ এই ভিডিওটিকে ব্যাপক পছন্দ করেছেন। যদি প্রতিবেদনটি আপনাদেরও ভালো লেগে থাকে সেক্ষেত্রে ভিডিওটি দেখার পর নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ মতামত আমাদের সাথে কমেন্ট সেকশনে শেয়ার করে নিতে পারেন।

Back to top button