কোনো অনুষ্ঠান বাড়িতে যাওয়ার আগেই মুখে এই সহজ গোপন ট্রিকসে মাখুন কফি, মাত্র কয়েক মিনিটেই পাবেন দুর্দান্ত রেজাল্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিজেকে সুন্দর দেখানোর জন্য বা ত্বক থেকে বিভিন্ন দাগ ছোপ দূর করার জন্য কিন্তু আমরা নানান ধরনের চেষ্টা করে থাকি। অনেকেই এই চক্করে পড়ে বাজার চলতি দামি ক্রিম ব্যবহার করেন। তবে আপনারা হয়তো জানেন না এই সমস্ত জিনিসগুলোর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে রাসায়নিক উপাদান থাকে যা আমাদের ত্বকের ক্ষতি করে। যার ফলস্বরূপ কিন্তু আমাদের ত্বকে আরো বেশি সমস্যা লক্ষ্য করা যায়।

তাই কোনরকম বাজারের প্রোডাক্ট ব্যবহার না করে বাড়ির কিছু উপকরণের সাহায্যে কিন্তু আপনারা ত্বকের যত্ন ট্রাই করে দেখতে পারেন। তাহলে কিন্তু অনেকদিন পর্যন্ত আপনাদের ত্বক ভালো অবস্থায় থাকবে এবং সম্পূর্ণ ট্যান চলে যাবে। আজ আপনাদের সাথে এমনই একটি রেমেডি শেয়ার করে নিতে চলেছি যাক সপ্তাহে দুদিন করতে পারলেই কেল্লাফতে। ত্বকের উপর কালচে দাগ হয়ে যাওয়া থেকে শুরু করে, ট্যান সংক্রান্ত সমস্যা, এজিং এর প্রবলেম বা রিংকেলস খুব সহজেই এখানে দূর হবে।

শীতকালে আমাদের ত্বক অত্যন্ত রুক্ষ হয়ে পড়ে যার দরুন আর কোন রকমের গ্লো লক্ষ্য করা যায় না। মুখের মধ্যে এই ইনস্ট্যান্ট গুলো যদি আপনারা ফিরিয়ে আনতে চান তাহলে আজকের এই স্কিন হোয়াইটনিং ব্রাইটিং রেমেডি ট্রাই করে দেখতে পারেন। এর জন্য আপনাদের প্রয়োজন হবে একপাতা কফি। ছোট পাত্রের মধ্যে এটি ঢেলে নিন।

তারপর এই কফির মধ্যে আপনাদের যোগ করতে হবে দুই চামচ বেসন, কয়েক ফোঁটা পাতিলেবুর রস, একটা ভিটামিন ই ক্যাপসুল, পছন্দ মতন যে কোন ফেসওয়াশ এবং সামান্য পরিমাণে কাঁচা দুধ। এই প্রত্যেকটা উপকরণে কিন্তু আমাদের ত্বকের জন্য ভীষণভাবে উপকারী।ভালোভাবে সমস্ত উপকরণ মিশিয়ে নিলেই আজকের ক্লেনজার তৈরি হয়ে যাবে। আসলে কফির মধ্যে রয়েছে ক্যাফিন যা ডিপ ক্লিনজিং করতে ব্যাপকভাবে সাহায্য করে থাকে।

পাশাপাশি বেসন আমাদের স্কিনকে ধুলো ময়লা থেকে রক্ষা করতে বা এক্সফোলিয়েট করতে সাহায্য করে। অন্যদিকে রূপচর্চায় লেবুর উপকারিতা আপনারা সকলেই জানেন। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন সি পিগমেন্টেশন এবং হাইপার পিগমেন্টেশন এর মতন সমস্যা দূর করে দেয়।

যদি আপনাদের ব্রণের দাগ থাকে তাহলেও কিন্তু সেটা এই লেবুর রসের কারণে চলে যাবে। ভিটামিন ই ক্যাপসুল এবং ফেসওয়াস দুটোই ত্বকের যত্নে ভীষণ উপকারী। ফেসওয়াশ এমনিতেই আমাদের ত্বককে একদম গভীরভাবে পরিষ্কার করে দেয়। ভালোভাবে এই ক্লেনজারটা ত্বকে এপ্লাই করে আপনাদের ১৫ থেকে ২০ মিনিট রাখতে হবে। ক্লেনজারের পর আপনাদের ব্যবহার করতে হবে সিরাম।

সিরাম প্রস্তুত করার জন্য ঠিক একই রকম ভাবে একটা ছোট পাত্রে একটা কফির প্যাকেট সম্পূর্ণ ঢেলে নেবেন। তারপর এর মধ্যে যোগ করুন এক চামচ এলোভেরা জেল, কয়েক ফোঁটা পাতিলেবুর রস এবং এক থেকে দেড় চামচ মতন অলিভ অয়েল। অলিভ অয়েল না থাকলে আপনারা এখানে নারকেল তেলও ব্যবহার করতে পারেন। সামান্য গোলাপজল যোগ করে ভালোভাবে প্রত্যেকটা উপাদান মিশিয়ে নিন। তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে এই স্কিন ব্রাইটনিং সিরামটি। এটি স্কিনে এপ্লাই করলে খুব সহজেই আপনাদের ব্রণের দাগ থেকে শুরু করে পিগমেন্টেশনের মতন সমস্যা একই রকম করে দূর হবে।

অর্থাৎ প্রথমে ক্লেনজার তৈরি করে আপনাদের ত্বক পরিষ্কার করে নিতে হবে। তারপর এই সিরামটা আপনাদের ভালোভাবে মুখে লাগাতে হবে। শীতের দিনে এই সিরাম কিন্তু আপনাদের ত্বককে মশ্চারাইজ করতেও ব্যাপক সাহায্য করবে। সুতরাং ত্বকের যত্ন নিতে এবার থেকে সপ্তাহে দুদিন হলেও এই দুটো মিশ্রণ বানিয়ে ব্যবহার করে দেখুন। এই ধরনের আরো বিউটি টিপস পেতে চাইলে আমাদের অন্যান্য প্রতিবেদন গুলোর উপর আপনারা নজর রাখতে পারেন।

Back to top button