ঘরে থাকা উপাদান দিয়ে তৈরি এই দুর্দান্ত কার্যকরী পাউডার রোজ খান ১ চামচ, রোগমুক্ত থাকবেন সারাজীবন

নিজস্ব প্রতিবেদন: দৈনন্দিন ব্যস্ততার মধ্যে একটা সময় কিন্তু আমাদের শরীর হাল ছেড়ে দেয়। দেখবেন আর সঠিকভাবে কোন কাজ করতে ইচ্ছে করেনা। সত্যি কথা বলতে গেলে শরীরে একদম এনার্জি থাকে না বললেই চলে। বাজার চলতি বিভিন্ন এনার্জি পাউডার বা ড্রিংক আপনারা হয়তো এই ক্ষেত্রে পেয়ে যাবেন।

তবে সবার কিন্তু এই ড্রিংক কেনার ক্ষমতা থাকে না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে তাই আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি একটি বিশেষ এনার্জি পাউডার তৈরির পদ্ধতি। রোজ সকালে যদি এক চামচ করে এটা আপনারা খেতে পারেন তাহলে প্রচুর এনার্জি পাবেন এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও অনেকটা বেড়ে যাবে। চলুন এটা কিভাবে তৈরি করবেন সেই প্রসঙ্গে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

এনার্জি পাউডার তৈরি করার জন্য প্রথমেই আপনাদের একটা প্যানের মধ্যে সয়াবিন কড়াই নিয়ে নিতে হবে ৫০ গ্রাম। শুকনো খোলায় এটাকে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নেওয়ার পর ২৫ গ্রাম কাজুবাদাম আর ৫০ গ্রাম আমন্ড প্যানে দিয়ে দিন। এবার সমস্ত উপকরণগুলোকে মিনিট দুয়েক সময় পর্যন্ত শুকনো খোলায় ভেজে ফেলুন। এবার এই উপকরণগুলোকে তুলে রেখে প্যানের মধ্যে নিয়ে নিন কিছুটা পরিমাণে চীনা বাদাম এবং ভাজা ছোলা। ভালোভাবে এই দুটো উপকরণ কেউ ভেজে তুলে রাখতে হবে। এবার আপনাদের নিয়ে নিতে হবে কিছুটা পরিমাণ মাখানা। এটা আপনারা যে কোন বড় মুদি দোকানে পেয়ে যাবেন। এটা কিন্তু খুবই উপকারী একটা জিনিস।

দুই থেকে তিন মিনিট সময় মাখানা ভেজে নেওয়ার পর তুলে রাখুন এবং প্যানে ৫০ গ্রাম পরিমাণ ওটস যোগ করে দিন। সমস্ত উপকরণ গুলো ভেজে নেওয়া হয়ে গেলে এগুলো যতক্ষণ না ঠান্ডা হয়ে যাচ্ছে অপেক্ষা করুন। অন্য একটা পাত্রে কিছুটা পরিমাণ মিছরি নিয়ে গুঁড়ো করে নেবেন।। চাইলে আপনারা মিছরির বিকল্প হিসেবে চিনি ব্যবহার করতে পারেন। ভাজা বাদাম এবং ছোলা গুলোকে আপনাদের গ্রাইন্ডারে এবার বুড়ো করে নিতে হবে এবং একটা ছাকনির সাহায্যে চেলে নেবেন।। তাহলে এর দানাদার অংশগুলো বাইরে বেরিয়ে যাবে।

এবার মিক্সার এর মধ্যে মাখানা ,চিনা বাদাম, ছোলা এবং ওটস প্রভৃতি নিয়ে গুঁড়ো করে ফেলুন। যখন বাদাম আপনারা গুরু করবেন তখন কিন্তু মিক্সার খুব বেশি সময় ধরে চালাবেন না। এবার এই দ্বিতীয়বারের মিশ্রণ গুঁড়ো করে নেওয়ার পর আপনাকে দিয়ে দিতে হবে চার চামচ পরিমাণে গুঁড়ো দুধ। গুঁড়ো দুধ ব্যবহার করলে এই পাউডারের টেস্ট অনেকগুণ বেড়ে যাবে। ফ্লেভার আরো সুন্দর করার জন্য আপনারা এলাচ গুঁড়ো যোগ করতে পারেন। সমস্ত উপকরণের গুড়োগুলোকে একসঙ্গে ভালোভাবে মিশিয়ে নিলেই কিন্তু তৈরি হয়ে যাবে বাড়িতে তৈরি অসাধারণ এনার্জি পাউডার। যেকোনো কাঁচের বয়ামে এটাকে আপনারা সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন।

তবে যেহেতু বাড়িতে বানাচ্ছেন তাই 15 দিনের হিসেবে বানানোর চেষ্টা করবেন, খুব বেশি দিনের জন্য নেবেন না। কারুর যদি ডায়াবেটিসের সমস্যা থাকে সেক্ষেত্রে মিছরি বা চিনি বাদ দিয়ে শুকনো খেজুর ব্যবহার করতে পারেন। হালকা গরম জল বা দুধের মধ্যে এক চামচ প্রতিদিন সকালে এই পাউডার মিশিয়ে নেবেন। সকালে যদি একবার আপনারা এই এনার্জি পাউডার দিয়ে দুধ বা জল খেতে পারেন তাহলে সারাদিন কিন্তু ভরপুর এনার্জি পাবেন আর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও অনেকটা বেড়ে যাবে। বাচ্চা থেকে বড় সকলেই কিন্তু এটা সহজে পান করতে পারবে।

Back to top button