দাঁতের যন্ত্রণায় হচ্ছেন বিরক্ত! মাত্র ৩০ সেকেন্ডেই দাঁতের ব্যথা হবে দূর, শুধু মেনে চলুন এই ৬টি দুর্দান্ত কার্যকরী টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাচ্চা থেকে বড় কমবেশি অনেকেরই কিন্তু দাঁতের যন্ত্রণার সমস্যা হয়ে থাকে। অনেক ক্ষেত্রেই ডাক্তার দেখানোর পরে তারা নানান ধরনের ওষুধ দেন কিন্তু সেটা ঠিকঠাক খাওয়া হয়ে ওঠেনা। আসলে ওষুধ খেতে তো সকলেরই সমস্যা। তবে এই সমস্যার সমাধান করতে আমরা আজকে নিয়ে চলে এসেছি বিশেষ কিছু টিপস।

যারা নিয়মিত দাঁতের যন্ত্রণা আচমকাই অনুভব করে থাকেন তারা অবশ্যই এই টিপসগুলো ফলো করে দেখুন। আশা করছি এটা আপনাদের অনেকটাই সাহায্য করবে। দাঁতের যন্ত্রণা হলে এই টিপসগুলো যদি আপনারা ঠিকঠাক ফলো করতে পারেন তাহলে অল্প সময়ের মধ্যেই কিন্তু সেটা কমে যাবে। চলুন তাহলে আর দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক।

দাঁতের যন্ত্রণা উপশম করতে বিশেষ কিছু টিপস:

১) প্রথমেই আপনাদের একটা শুকনো খোলায় কিছুটা পরিমাণ লবঙ্গ আর গোলমরিচ নিয়ে নিতে হবে। কিছুক্ষণ এটাকে হালকা ভেজে নিয়ে নামিয়ে ঠান্ডা করে নিন। তারপর মিক্সার গ্রাইন্ডারে গুঁড়ো করে ফেলুন। এবার এখান থেকে সামান্য একটু পাউডার নিয়ে তাতে লবণ মিশিয়ে ভালো করে ব্রাশ করে নিন। তবে ব্রাশ না করে তাদের যে জায়গায় যন্ত্রণা হচ্ছে সেখানে যদি একটু লাগিয়ে নেন তাহলেও কিন্তু কমে যাবে।

২) দ্বিতীয় পদ্ধতিতে একটা পাত্রের মধ্যে আপনাকে কিছুটা পরিমাণ জল নিয়ে নিতে হবে। এবার একটা গোটা ফিটকিরি নিয়ে জলের মধ্যে ডুবিয়ে দেবেন। ৫ থেকে ১০ মিনিট জলের মধ্যে ফিটকিরি ডুবিয়ে রাখার পর সেটাকে বের করে এই জলটা দিয়ে আপনারা দিনের মধ্যে চার থেকে পাঁচ বার কুলকুচি করে দিলেই দেখবেন দাঁতের সমস্ত ব্যথা কমে গেছে।

৩) তৃতীয় পদ্ধতিতে আপনাদের কিছুটা পরিমাণ রসুন নিয়ে সেটাকে গ্রেট করে নিতে হবে। তারপর এই রসুনের গ্রেট করা অংশের মধ্যে সামান্য পরিমাণে হলুদ গুঁড়ো, এক চিমটি লবণ মিশিয়ে নিন। দাঁতের যে অংশে যন্ত্রণা হচ্ছে সেখানে এই মিশ্রণটা একটু লাগিয়ে নিলেই দেখবেন অল্প সময়ের মধ্যে আপনারা ব্যথার হাত থেকে রেহাই পেয়ে যাবেন।

৪) দাতের গোড়ায় অতিরিক্ত যন্ত্রণা হলে আপনারা কোন ঝাঁঝালো টুথপেস্ট যেমন ডাবর রেড পেস্ট চেপে ধরতে পারেন তাহলেই কিন্তু কয়েক মিনিটের মধ্যেই ব্যাথার হাত থেকে রেহাই পাবেন।

৫) এই পঞ্চম টিপসটি যাদের অতিরিক্ত ঠান্ডা লাগে তারা অবশ্যই করতে পারবেন না। এতে আপনাদের একটা পাত্রের মধ্যে কিছুটা পরিমাণ জল নিয়ে নিতে হবে। তারপর এতে কয়েক টুকরো বরফ দিয়ে জলটাকে খুব ঠান্ডা করে নিন এবং সেটা দিয়ে কুলকুচি করুন।। তাহলেই দেখবেন খুব সহজে ব্যথা দূর হয়ে গিয়েছে।

৬) এবার চলে আসা যাক আমাদের প্রতিবেদনের একেবারে সর্বশেষ টিপসে। এই পদ্ধতিতে আপনাদের কিছু পরিমাণ পেয়ারা পাতার প্রয়োজন হবে। একটা পাত্রে কিছুটা পরিমাণ জল গরম করে নিয়ে ভালোভাবে পেয়ারা পাতা ধুয়ে এতে দিয়ে দিন। দুই থেকে তিন মিনিট এটাকে ভালো করে ফুটিয়ে দিন। গ্যাস অফ করে জলটাকে ঠান্ডা করে কুলকুচি করুন। দেখবেন কোন রকম ব্যথার চিহ্নমাত্র থাকবে না।

Back to top button