আপনি কি প্লাস্টিকের বোতল ফেলে দেন! এবার থেকে ভুলেও ফেলবেন না আর, জেনে নিন ১৫টি দুর্দান্ত আইডিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমাদের প্রত্যেকের বাড়িতে কিন্তু জল বা তেল রাখার বিভিন্ন প্লাস্টিকের বোতল পড়ে থাকে। অনেক ক্ষেত্রেই হয়তো আমরা এগুলো ফেলে দিয়ে থাকি। তবে এগুলোকে কিন্তু অনেক ধরনের কাজে লাগানো যেতে পারে যা আমাদের সকলেরই অজানা। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এই প্লাস্টিকের বোতল দিয়েই বেশ কয়েকটি টিপস আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব। দৈনন্দিন জীবনে খুব সহজেই এই ট্রিকস গুলো আপনারা কাজে লাগাতে পারবেন। চলুন তাহলে দেরি না করে আজকের প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।।

১) প্রথমেই কয়েকটা ছোট ছোট প্লাস্টিকের বোতল নিয়ে সেগুলোর স্টিকার তুলে ফেলতে হবে। তারপর এর নিচের দিক থেকে সামান্য অংশ এবং মাঝের অংশটাকে কেটে নেবেন। এর শেষের আর প্রথমের অংশটাকে জুড়ে আপনাদের একটা ছোট বোতল তৈরি করে নিতে হবে। এই ছোট বোতলগুলোর মধ্যে খুব সহজেই রান্না ঘরের বিভিন্ন মসলা আপনারা সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন।।

২) একটা প্লাস্টিকের ছোট বোতল নিয়ে তার নিচের অংশটাকে কেটে খুব সহজেই এর মধ্যে কিন্তু আপনারা বিভিন্ন বাসন মাজার স্ক্রাবার থেকে শুরু করে অন্যান্য উপকরণ রাখতে পারেন। স্ক্রাবারগুলো সাবানের মধ্যে রাখলে অনেক সময় খুব দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। তাই অবশ্যই এই টিপসটা ট্রাই করে দেখুন।

৩) এই টিপসটি করার জন্য আপনাদের প্রথমেই এক লিটারের যে কোন জল বা তেলের প্লাস্টিকের বোতল নিয়ে নিতে হবে। উপর থেকে তিন থেকে চার আঙ্গুল মতন বাদ দিয়ে কাট করে নিন। এবার এর মাঝে অংশটাকে লম্বা করে একটু চিরে বের করে নেবেন। বাড়িতে রান্না ঘরে চায়ের কাপ রাখতে অনেকটাই জায়গা লেগে যায়। বোতল এভাবে কাজ করে নিলে খুব সহজেই এর মধ্যে চায়ের কাপগুলোকে রাখতে পারবেন আর কোনরকম পোকামাকড় এতে মুখ দিতে পারবে না।

৪) ঠিক আগের স্টেপের মতোই যদি একটু বড় সাইজের বোতল আপনারা কাট করে নেন সে ক্ষেত্রে বাটি বা প্লেট ও কিন্তু খুব সহজেই এর মধ্যে পরপর সাজিয়ে রাখতে পারবেন।

৫)২টি ১ লিটারের অব্যবহার্য সরষের তেলের বোতল নিয়ে নেবেন। তারপর এর উপরের কিছুটা অংশ একেবারে সমান করে একসাথে কেটে নেবেন। এবার রান্নাঘরের যে রুটির বেলনগুলো থাকে সেগুলো খুব সহজেই এর মধ্যে রেখে একটা দিয়ে অপরটা আটকে দেবেন । এতে যেমন জায়গা কম লাগবে ঠিক তেমনভাবেই কিন্তু কোন রকমের ধুলোবালি এতে পড়বে না।

৬) একটা ৫০০ মিলির বোতল আপনাদের প্রথমেই নিয়ে নিতে হবে। নিচের দিকে চার আঙ্গুল বাদ দিয়ে বোতলের উপরের অংশটা কেটে নেবেন। এবার এর মধ্যে খুব সহজেই আপনারা বিভিন্ন টুথপেস্ট থেকে শুরু করে ব্রাশ প্রভৃতি ভরে যে কোন জায়গায় নিয়ে যেতে পারবেন। ব্যাগের মধ্যে রাখলে এগুলো অনেক সময় ছড়িয়ে গিয়ে থাকে। এভাবে রাখলে আর সেই সমস্যা দেখা দেবে না।

৭) এই টিপসটি করার জন্য আপনাদের একদম বড় বোতল অর্থাৎ দুই থেকে আড়াই লিটারের বোতল নিয়ে নিতে হবে। এবার এটাকে অনেকটা কূপের মতন উপরের অংশটা কেটে চারদিকে চারটে ফুটো করে নিতে হবে। যেকোনো লোহার জিনিস গরম করে আপনারা এই ছিদ্র করার কাজটা করে নিতে পারবেন।

এবার দুটো ছোট সাইজের ওড়না নিয়ে বাজে কোন বড় কাপড়কেই কাজ করে প্লাস চিহ্নের মতন পরপর সাজিয়ে নেবেন। এই অবস্থায় গীট বেঁধে যেকোনো সরু সুতো দিয়ে এটাকে বেঁধে বোতলের ওই ছিদ্রের অংশ দিয়ে আরো একবার গিট বেঁধে দিতে হবে। এরপর একটা স্ট্যান্ড নিয়ে বোতলের মুখের মধ্যে লাগিয়ে দিলেই খুব সহজে একটা ঝুলঝাড়ুর মতন তৈরি হয়ে যাবে। এটা কে দিয়ে খুব সহজেই বিভিন্ন লাইট বা ফ্যান আপনারা পরিষ্কার করে নিতে পারবেন।

৮) যাদের বাড়িতে খুব বেশি বয়াম বা কৌটো থাকে না তারা খুব সহজে এই টিপসটা কাজে লাগাতে পারেন। এর জন্য সার্ফ বা ডিটারজেন্টের যেকোনো ধরনের প্যাকেট বাজার মধ্যেই আপনাদের জিনিসটা রয়েছে তার উপরের অংশে বোতলের ঢাকনা লাগিয়ে সেলোটেপ বা ব্ল্যাক টেপ দিয়ে আটকে দেবেন। তাহলেই আর অতিরিক্ত কোন বয়াম বা কৌটোর প্রয়োজন হবে না।

৯)মহিলাদের প্রতি মাসে ঋতুস্রাব চলাকালীন ন্যাপকিন ফেলে দেওয়া নিয়ে সমস্যার সৃষ্টি হয়। সেই কাজেও কিন্তু আপনারা কৌটো বা বোতল ব্যবহার করতে পারেন। তার জন্য একটা কালো পলিথিনের মধ্যে এই সমস্ত জিনিসগুলো মুড়ে বোতল বা কৌটার মধ্যে রেখে দেবেন এবং মাসের শেষে ফেলে দেবেন।

১০) প্রতিবেদনের একদম শেষ টিপস হিসেবে আপনাদের একটা ঘর সাজানোর জিনিস তৈরি করার কথা বলব। এটার জন্য বেশ কয়েকটা বোতলের ঠিক মুখের অংশটা আপনাদেরকে তিন থেকে চার হাত কেটে নিতে হবে। এবার একটা কাঁচির সাহায্যে সমান সমান করে আপনাদের লম্বা লম্বা ভাবে পাশাপাশিও এটাকে কেটে নিতে হবে। এবার এর একটা কাটিং উঠিয়ে আর একটা কাটিং নামিয়ে নিতে হবে।

এভাবে দুই থেকে তিনটি বোতল কেটে নেওয়ার পরে মাঝখানের ছিদ্রের অংশটি দিয়ে আপনাদের যে কোন প্লাস্টিকের পাইপ বা গোল কিছু রাখতে হবে। এবার বোতলের কাটিং এর অংশগুলোর মধ্যে আপনাদের থার্মোকলের ছোট ছোট গোল বল লাগিয়ে নিতে হবে। চাইলে এগুলোকে রং করেও নিতে পারেন তাহলে অনেকটা ফুলদানির মতন দেখতে লাগবে। যদি কোথাও বুঝতে অসুবিধা হয় সেক্ষেত্রে অবশ্যই সঙ্গে থাকা ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন।

ভিডিওটি দেখতে এই লিঙ্কে ক্লিক করুন – https://youtu.be/ldnVv9nLP6Y

Back to top button