আট থেকে আশি সবাই করবে পছন্দ! একবার খুব সহজ এই ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে দেখুন দুর্দান্ত স্বাদের বেগুনের মশলা কারি রেসিপি

নিজস্ব প্রতিবেদন: শীতকালের একটি অত্যন্ত পছন্দের সবজি হল বেগুন। এই সবজিটি দিয়ে বেগুন ভাজা থেকে শুরু করে বেগুন ভর্তা, নানান ধরনের সুস্বাদু বেগুনের তরকারি তৈরি করা হয়ে থাকে। ভাত থেকে শুরু করে রুটি সবকিছু সাথেই কিন্তু এই রেসিপিগুলি খেতে দারুন লাগে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা একটু ইউনিক ধরনের বেগুনের রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি যা গরম ভাতের সাথে জমে যাবে।

এই রেসিপিটি হল অসম্ভব মজার বেগুনের মসলাকারীর রেসিপি। খুব সহজেই আপনারা এই রেসিপিটি তৈরি করে নিতে পারবেন। ঘরোয়া সাধারণ উপকরণ ব্যবহার করেই এটা বানানো যাবে। চলুন তাহলে শুরু করা যাক।

প্রথমেই পরিমাণ মতন বেগুন নিয়ে মোটা করে কেটে জল দিয়ে ধুয়ে নেবেন। তারপর এগুলোর মধ্যে থেকে জল ঝরিয়ে নিতে হবে। এবার এতে হাফ চা চামচ লঙ্কার গুঁড়ো, সমপরিমাণ হলুদ আর লবণ নিয়ে মিশিয়ে নিন।যেন প্রতিটা বেগুনের গায়ে মসলাগুলো খুব ভালোভাবে লেগে যায় সেই বিষয়ে নজর রাখবেন। এবার গ্যাসে একটা করাই বসিয়ে কিছুটা পরিমাণ সয়াবিন তেল ঢেলে গরম করে নিন।

এবার বেগুনের পিস গুলোকে আপনাদের ভেজে নিতে হবে। উল্টাপাল্টা ভালোভাবে ভাজা হয়ে গেলে এগুলোকে তুলে অন্য একটা পাত্রে রেখে দেবেন। এবার ওই তেলের মধ্যেই হাফ কাপ পরিমাণ পেঁয়াজ কুচি যোগ করে নাড়াচাড়া করতে থাকুন। পেঁয়াজ হালকা সোনালী বর্ণের ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে ২ টেবিল চামচ পেঁয়াজ বাটা, আদাবাটা, রসুন বাটা, ধনে জিরা বাটা যোগ করে ভালোভাবে কষিয়ে নিতে হবে।

সামান্য পরিমাণ জল যোগ করে অনবরত নাড়াচাড়া করে মশলা কষিয়ে নেবেন। এবার এর মধ্যে হলুদ গুঁড়ো হাফ চা চামচ, স্বাদ মতন লবণ আর লঙ্কার গুঁড়ো যোগ করে দিন। যতক্ষণ পর্যন্ত না মসলার কাঁচা গন্ধ চলে যাচ্ছে আবারও কষিয়ে নেবেন ‌। এবার এর মধ্যে যোগ করতে হবে ২ টেবিল চামচ বাদাম বাটা। তবে আপনারা চাইলে এর সাথে পোস্ত বাটাও দিতে পারেন। মসলা থেকে তেল ছাড়তে শুরু করলে এর মধ্যে জল যোগ করে বলক না আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

ঝোল ফুটতে শুরু করলে এর মধ্যে আপনাদের ভেজে রাখা বেগুন গুলো একে একে যোগ করে দিতে হবে। বেগুনগুলো দেওয়ার পর খুব বেশি নাড়াচাড়া করবেন না যাতে এটা ভেঙে যায়। আলতো করে নাড়াচাড়া করে চার থেকে পাঁচটি কাঁচা লঙ্কা যোগ করুন। সামান্য পরিমাণে গরম মশলা পাউডার এবং ঘি যোগ করে দিন ‌। ঢাকা দিয়ে রান্নাটিকে তিন থেকে চার মিনিটের জন্য দমে বসিয়ে রাখুন। নির্ধারিত সময়ের পর অসাধারণ এই রেসিপি পরিবেশনের জন্য তৈরি হয়ে যাবে।

Back to top button