জীবন কেটে গেলেও ব্যবসা চলবে রমরমিয়ে! মাত্র ৫ হাজার টাকায় শুরু করুন এই ব্যবসা, লাভ নিয়ে উঠতে পারবেন না

নিজস্ব প্রতিবেদন: ব্যবসা অনেক ধরনের হয়ে থাকে তবে এমন কিছু ব্যবসা রয়েছে যেগুলো খুব অল্প সময়ের মধ্যেই কিন্তু বাজারে ছড়িয়ে যায়। যারা নতুন ব্যবসায়ী রয়েছেন তাদের কিন্তু সব সময় এই ধরনের ব্যবসাই শুরু করা উচিত। বর্তমানে দেশে যেভাবে বেকার সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে একটু বিকল্প কর্মসংস্থান দেখা ছাড়া আর কোন উপায় নেই। চাকরি ছাড়া আমাদের মাথাতে যে বিকল্প কর্মসংস্থানটির কথা সবার প্রথমেই আসে সেটা হল ব্যবসা।

তবে ঠিক কি ধরনের ব্যবসা শুরু করলে লাভবান হবেন এটা সম্পর্কে অনেকের মধ্যেই ধারণা নেই। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে সেই সমস্ত পাঠকদের উদ্দেশ্যেই আমরা একটা ব্যবসার আইডিয়া শেয়ার করে নেব। চলুন কিভাবে সেই ব্যবসা শুরু করবেন এই প্রসঙ্গে জেনে নেওয়া যাক।

পেপসি তৈরির ব্যবসা:

প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়ার আগে শুরুতেই জানিয়ে রাখি এই ব্যবসায় প্রোডাক্ট তৈরি করতে গেলে কিন্তু আপনাদের মাত্র ৩৫ পয়সা পর্যন্ত খরচ হবে। অন্যদিকে এটাকে বাজারে আপনারা বিক্রি করতে পারবেন প্রায় ২ টাকা বা ৫ টাকা পর্যন্ত দামে। মোটামুটি ছোটবেলা থেকে কমবেশি আপনারা সকলেই হয়তো এই পেপসি খেয়েছেন। তবে এটা তৈরি করাটাও কিন্তু খুব সহজ এবং এটা দিয়েও যে ব্যবসা শুরু হতে পারে তা হয়তো আপনাদের অনেকেরই জানা নেই।

এই পেপসির ব্যবসা আপনারা দু ভাবে করতে পারেন তাহলে ম্যানুয়াল মেশিনের সাহায্যে এবং অটোমেটিক মেশিনের সাহায্যে। যদি ম্যানুয়াল মেশিনের সাহায্যে আপনারা ব্যবসা শুরু করেন তাহলে একটু কম প্রোডাক্ট উৎপন্ন হবে।। অটোমেটিক মেশিন এর ক্ষেত্রে কিন্তু খুব একটা খাটনি করতে হবে না আর প্রোডাক্টের উৎপাদনও প্রচুর বেশি হবে।।

পেপসি তৈরি করার জন্য সাধারণভাবে কাঁচামাল হিসেবে প্রয়োজন হবে মিনারেল ওয়াটার বা বিশুদ্ধ জল, প্রয়োজন অনুযায়ী ফ্লেভার, বেনজয়িক এসিড এবং সাইট্রিক এসিড।বেনজয়িক এসিড এবং সাইট্রিক এসিড পেপসি বেশিদিন পর্যন্ত সংরক্ষণ করতে সাহায্য করবে। ম্যানুয়াল মেশিনের সাহায্যে এই সমস্ত উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে খুব সহজেই আপনারা পেপসি প্রস্তুত করে নিতে পারেন।

মিক্সিং মেশিনের সাহায্যে পেপসি প্রস্তুত করার পরে এটাকে প্রথমে ছাকনি দিয়ে ছেকে একটা স্টিলের পাত্রে নিয়ে নেবেন। তারপর এই পেপসি গুলোকে খুব সহজেই এই মিক্সিং মেশিনের মুখ থেকে নলের সাহায্যে পাউচে ভরে নেবেন। পাউচ কাটিং এর জন্যেও আপনারা কিন্তু আলাদা মেশিন পেয়ে যাবেন। সাবধানে নলের মুখ খোলা রেখে আপনারা এই কাটিং এর কাজটা করে ফেলতে পারবেন। অটোমেটিক মেশিন এর ক্ষেত্রে কিন্তু এই ঝামেলা আপনাদের অনেকটাই কমে যাবে।

আপনারা চাইলে সরাসরি পেপসি পাউচ কিনেও বাজারে বিক্রি করে ব্যবসা শুরু করতে পারেন। যে কোন স্টল বা দোকানের মাধ্যমে ব্যবসা শুরু করতে পারবেন। স্কুল বা কলেজের সামনে কিন্তু ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে এই ধরনের প্রোডাক্ট খুবই বিক্রি হয়ে থাকে‌। তাই আপনারাও চেষ্টা করবেন ব্যবসা শুরু করার জন্য এরকম একটি লোকেশন বেছে নেওয়ার।

আবার পাউচ না কিনে নিজেদের বাড়িতেও আপনারা মেশিনের মাধ্যমে এগুলো তৈরি করে বিক্রি করতে শুরু করতে পারেন। যদি আপনারা মেশিনের মাধ্যমে এই পেপসির ব্যবসা করতে চান সেক্ষেত্রে আমাজন এবং ইন্ডিয়ামার্ট এর মতন ওয়েবসাইটগুলোতে মিক্সিং আর প্যাকিং দুটো মেশিন সহজে পেয়ে যাবেন। আর যদি পাউচ কিনে ব্যবসা শুরু করতে চান সেক্ষেত্রে নিচের দেওয়া ঠিকানায় যোগাযোগ করতে পারেন।

Sonarpur Super Art
Prop – Mr.Alokesh Roy
Khirish tala, Sonarpur.
Kolkata – 700150
Contact – 9002886369/8335815276.

Back to top button