মাছের ঝোল তো অনেকভাবেই খেয়েছেন! একবার এই গোপন ট্রিকসে বানান মাছের ঝোল, খাবেন পুরো চেটেপুটে

নিজস্ব প্রতিবেদন: কথাতেই রয়েছে মাছ ভাতে বাঙালি। সপ্তাহের বেশিরভাগ দিনে কিন্তু আমাদের অনেকের বাড়িতে মাছ রান্না করা হয়ে থাকে। তবে প্রত্যেকদিন একইভাবে বানালে কোন রান্নাই খুব একটা খেতে ভালো লাগে না। তাই আজ বিশেষ কোনো রেসিপি না এনে একটা ঘরোয়া সাধারণ রেসিপিই আপনাদের জন্য হাজির করেছি। এভাবে একবার মাছের ঝোল বানিয়ে খেয়ে দেখুন কখনোই কিন্তু আর অন্য কোন রেসিপি ট্রাই করার ইচ্ছে হবে না। বাচ্চা থেকে বড় সকলেই আজকের রেসিপি খুব পছন্দ করবে। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে শুরু করা যাক।

রান্নাটা করার জন্য আপনাদের প্রথমেই পরিমাণ মতন কাতলা মাছ নিয়ে নিতে হবে। এবার কিছুটা পরিমাণে পাতিলেবুর রস, সামান্য পরিমাণে লবণ, হলুদ আর লঙ্কার গুঁড়ো দিয়ে মাছগুলোকে ভালোভাবে মাখিয়ে নিন। দশ মিনিট সময় পর্যন্ত এই অবস্থায় ম্যারিনেট করে রাখতে হবে। এভাবে মাখিয়ে নিলে মাছ রান্না করার পর কিন্তু খেতে খুবই ভালো লাগবে। এবার গ্যাসে একটা কড়াই বসিয়ে তার মধ্যে 1 চামচ পাঁচফোড়ন ও হাফ চামচ গোটা জিরে যোগ করুন।

মিডিয়াম আঁচে এই দুটো উপকরণকে একটু নাড়াচাড়া করে নিয়ে নামিয়ে ঠান্ডা করে ফেলুন আর একটা পাউডার তৈরি করে নিন। তারপর মূল রান্নায় যাওয়ার জন্য গ্যাসে কড়াই বসিয়ে পরিমাণ মতন তেল দিয়ে দিন। রান্নাটি আপনারা সাদা তেল দিয়ে করতে পারেন। তেল গরম করে নিয়ে চটপট মাছের পিসগুলোকে আপনাদের ভেজে নিতে হবে।

মাছ ভাজা গুলো তুলে রাখার পর কড়াইতে যেটুকু তেল ছিল তার মধ্যেই সামান্য কালো জিরে আর কয়েক ফালি করা কাঁচালঙ্কা ফোড়ন হিসেবে দিয়ে দিন। সুন্দর গন্ধ বেরোতে শুরু করলে এর মধ্যে স্লাইস করে কাটা পেঁয়াজ দিয়ে দিন। পেঁয়াজ একটু হালকা ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে এক চামচ আদা বাটা আর স্বাদমতো লবণ যোগ করুন।

সামান্য জল ব্যবহার করে মসলাটাকে ভালো করে কষিয়ে নেবেন। এবার একটা অন্য বাটির মধ্যে কিছুটা পরিমাণে টক দই নিয়ে নিন। টক দই এর মধ্যে এক টেবিল চামচ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো আর সামান্য হলুদ গুঁড়ো নিয়ে কিছুক্ষণ ফেটিয়ে নিতে হবে। কড়াইতে থাকা পেঁয়াজ একটু নরম হয়ে গেলে টক দইয়ের মিশ্রণটাকে এর মধ্যে যোগ করুন আর ভালোভাবে মিশিয়ে নিন।

দই দেওয়ার পরে কিন্তু আপনাদের গ্যাসের আঁচ একেবারে কমিয়ে রাখতে হবে। এরপর যে ভাজা মসলা আগে থেকে তৈরি করে রেখেছিলেন সেখান থেকে কিছুটা রান্নায় দিয়ে দেবেন। তারপর বেশ খানিকটা পরিমাণে ধনেপাতা কুচি, হাফ চামচ চিনি আর একটু লবণ যোগ করুন। মিডিয়াম আঁচে সবকিছুকে একটু ভালো করে সময় নিয়ে কষিয়ে নিতে হবে। জল টেনে গিয়ে যখন একটু তেল ছেড়ে দেবে তখন আরো একটু পরিমাণে গরম জল দিয়ে এটাকে কষিয়ে নেবেন।

এই পর্যায়ে ভেজে রাখা কাতলা মাছগুলোকে রান্নাতে যোগ করুন এবং আরো একটু গরম জল দিয়ে গ্রেভি তৈরি করে কষিয়ে নিন। শেষে যে ভাজা মশলাটা বাকি ছিল সেটাকে রান্নায় যোগ করে কয়েক মিনিট ফুটিয়ে নিলেই কিন্তু অসাধারণ এই রেসিপিটা তৈরি হয়ে যাবে।। শীতের দুপুরে গরম ভাতের সাথে এই কাতলা মাছের রেসিপি জাস্ট জমে যাবে।

Back to top button