মাত্র ৩০ টাকায় পান সুন্দর ডিজাইনের শাড়ি! এখান থেকে কিনে শুরু করতে পারেন ব্যবসা, অল্পদিনেই লাভ হবে প্রচুর

নিজস্ব প্রতিবেদন: আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য বর্তমান সময়ে মানুষের কাছে যে জিনিসটি সবথেকে বেশি প্রয়োজন তা হল উপযুক্ত ব্যবসার আইডিয়া। কারণ অনেকেই আজকাল ব্যবসা শুরু করার কথা ভাবছেন, তবে উপযুক্ত পরিকল্পনার অভাবে সেটা কিন্তু সম্ভব হয়ে উঠছে না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের তাই আমরা আপনাদের সাথে এমন একটি ব্যবসার আইডিয়া শেয়ার করে নেব যা গোটা বছর ধরেই কিন্তু ভালোভাবে চালানো যাবে আর কোনো রকমের লোকশানের চিন্তা নেই।।

এটি হল পাইকারি দরে শাড়ির ব্যবসার আইডিয়া। পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে বহু মার্কেট রয়েছে যেখানে অত্যন্ত কম দামে নানান ধরনের শাড়ি বিক্রি করা হয়ে থাকে। প্রধানত ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট থেকে তৈরি করে এখানে সোজাসুজি শাড়ি বিক্রি করা হয় তাই দাম এতটা কম। এই সমস্ত মার্কেট থেকে যদি আপনারা শাড়ি কিনে নিয়ে এসে লোকাল জায়গায় বিক্রি করতে পারেন তাহলে কিন্তু দুর্দান্ত প্রফিট হতে পারে। তবে তার জন্য আপনাদের অবশ্যই ব্যবসার কয়েকটি স্টেপ ভালোভাবে জেনে নেওয়া উচিত।

ব্যবসার কিছু বিশেষ দিক:

১) ব্যবসা সবসময় এমন শুরু করা উচিত যাতে মূলধনের বিনিয়োগ কম এবং উপার্জন বেশি। যেহেতু পাইকারি ব্যবসা শুরু করলে মূলধন অনেক কম লাগবে সুতরাং নিঃসন্দেহে সাধারণ মানুষ এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

২) ব্যবসা শুরু করার সময় যে দ্বিতীয় দিকটি মাথায় রাখতে হয় সেটা হচ্ছে বাজার চাহিদা। কোন পণ্যের যদি বাজার চাহিদা না থাকে সেক্ষেত্রে কোনোভাবেই কিন্তু সেই ব্যবসা ধরে রাখা সম্ভব নয়। তাই অবশ্যই স্থানীয় বাজারে ব্যাপক চাহিদা রয়েছে এমন জিনিসের ব্যবসাই আপনাদের বিবেচনা করে শুরু করতে হবে।

৩) তৃতীয়ত ব্যবসা শুরু করার সময় আপনাদের অবশ্যই কিন্তু যোগাযোগ অর্থাৎ মানুষের সাথে ব্যবহার আর অন্যান্য দিকে বিশেষ নজর দিতে হবে। কারণ মানুষ সবসময়ই ভালো ব্যবহারে মুগ্ধ হয়ে থাকে।

যদি আপনারা শাড়ির ব্যবসা শুরু করতে চান সে ক্ষেত্রে পাইকারি মার্কেট থেকে প্রথমেই শাড়ি কিনে নিয়ে আসবেন। তারপর প্রতি শাড়ির উপর নির্দিষ্ট কিছু প্রফিট মার্জিন রেখে এগুলো খুব সহজেই লোকাল মার্কেটে বিক্রি করবেন। মহিলাদের মধ্যে যেহেতু দৈনন্দিন ব্যবহার থেকে শুরু করে উৎসব অনুষ্ঠানের দিনগুলিতেও ব্যাপক শাড়ির চাহিদা থাকে তাই চিন্তার কোন ব্যাপার নেই।।

আপনারা নিঃসন্দেহে নিজেদের কাজ এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন। এই ব্যবসা শুরু করতে গেলে প্রাথমিক অবস্থায় মোটামুটি ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা মূলধন থাকলেই কাজ হয়ে যাবে। পাশাপাশি আজ আমরা আপনাদের সাথে এমন একটি ঠিকানা শেয়ার করে নেব যেখানে অত্যন্ত অল্প দামে বিভিন্ন শাড়ির সম্ভার পাবেন আপনারা।

এই দোকানে মাত্র ৭৫ টাকায় আপনারা পেয়ে যাবেন মিক্সচার শাড়ি, অল ওভার প্রিন্ট এর কাজ করা শাড়ি পাচ্ছেন মাত্র ৯৫ টাকায়, হ্যান্ডবিট এর মধ্যে শাড়ি পাচ্ছেন ১২০ টাকায়। এছাড়াও ১৫০ টাকায় হ্যান্ডলুম শাড়ি, ১৮০ টাকায় ঝর্ণাখাবি, ২৫০ টাকায় বাহামনী শাড়ি, ২৫০ টাকায় বেলপাতা হ্যান্ডলুম, হ্যান্ডলুম এর উপরে সুতির কাজ আপনারা পেয়ে যাচ্ছেন ২৫০ টাকায়।

এই সমস্ত শাড়ি ছাড়াও কাঁথা স্টিচ, পিওর কটন থেকে পিওর সিল্ক, জামদানি,তাত অথবা কাতান বেনারসি সবকিছুই এখানে আপনারা পাবেন। প্রত্যেকটা শাড়ির কালেকশনের বিপুল রং আর ভ্যারাইটি রয়েছে সুতরাং আপনাকে চিন্তা করতে হবে না। যদি কোন শাড়িতে কোন সমস্যা হয় বা আপনার মাল বিক্রি না হয় সেটাও কিন্তু খুব সহজেই রিটার্ন হয়ে যাবে।

পাইকারি দরে পণ্য কেনার সুযোগ্য ঠিকানা:

যদি আপনারা এই শাড়ির ব্যবসা শুরু করতে চান সেক্ষেত্রে আর একদম সময় নষ্ট করবেন না, দেরি না করে চলে আসুন নিচের দেওয়া ঠিকানায়।
Shop Name : Maa monosha saree ghor
Prop : Gopal Ghosh
Address : Sutragarh dalal para lane,Alurmath, Santipur,Nadia,741404,West Bengal.
Contact – 8918168943/7908073546

Back to top button