মাত্র ৩০ টাকায় পেয়ে যান বেনারসি! এখান থেকে কিনে শুরু করুন ব্যবসা, লাভ হবে প্রচুর

নিজস্ব প্রতিবেদন: শাড়ির ব্যবসা শুরু করে বিগত সময়গুলিতে বহু মানুষ লাভবান হয়েছেন। আসলে শাড়ি এমন একটি জিনিস যার চাহিদা দেশ থেকে শুরু করে বিদেশের বাজারে রয়েছে ব্যাপক পরিমাণে। দৈনন্দিন ব্যবহারের জন্যই হোক বা কোন ধরনের উপহারের জন্য শাড়ি কিন্তু বহু মহিলারাই কিনে থাকেন।

বিশেষ করে বিয়ের সিজানে বা উৎসব অনুষ্ঠানে দিনগুলোতে শাড়ির চাহিদা প্রচুর বেড়ে যায়। সুতরাং এই ব্যবসায় কোনরকম লোকসান নেই বললেই চলে। তবে তার জন্য অবশ্যই আপনাদের সঠিক পদ্ধতিতে ব্যবসা শুরু করতে হবে এবং নিজেদেরকে ব্যবসায়ী হিসেবে প্রস্তুত করতে হবে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে শাড়ির ব্যবসার বিভিন্ন খুঁটিনাটি তথ্য এবং একটি বিশেষ মার্কেটে ঠিকানা সম্পর্কে আলোচনা করে নেব।

শাড়ির ব্যবসা কিভাবে শুরু করবেন?

শাড়ির ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনাদের প্রথমেই পাইকারি মার্কেট থেকে শাড়ি কিনে লোকাল মার্কেটে সেটা বিক্রির ব্যবস্থা করতে হবে। যদি আপনাদের কাছে পুঁজি বেশি থাকে সেক্ষেত্রে সহজেই আপনারা কিন্তু যেকোনো দোকান আপনারা কিনে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন যে দোকানে আপনারা ব্যবসা করছেন সেটা যেন বেশ জনসমাগম পূর্ণ স্থানের মধ্যে হয়ে থাকে অর্থাৎ মানুষের নজরে আসে।

ক্রেতাদের নজরে যদি আপনার দোকান না আসে সে ক্ষেত্রে কিন্তু কোনোভাবেই ভালো ব্যবসা হবে না। যদি অনলাইন মার্কেটের মাধ্যমে বিক্রি করতে চান সেক্ষেত্রে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন অথবা সাইট গুলোতে আপনারা নিজেদের শাড়ির প্রচার করতে পারেন। ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রাম এর মতো প্ল্যাটফর্ম গুলোর সাহায্যে বিক্রি করতে চাইলে পোস্ট অথবা লাইক করে শাড়ি দেখাতে পারেন। আজকাল অনেক গৃহিনী থেকে শুরু করে বেকার যুবক-যুবতীরা এইভাবে ব্যবসা করে থাকেন।

মূলধন এবং লাইসেন্স সহ অন্যান্য বিষয়:

এই ব্যবসা শুরু করার জন্য কিন্তু খুব বেশি মূলধনের প্রয়োজন নেই। আপনারা যেরকম ব্যবসা বা দোকান সাজিয়ে তুলতে চান ঠিক তেমন ভাবেই আপনাকে মূলধন হাতে রেখে কাজ চালাতে হবে। পাশাপাশি এই ব্যবসা শুরু করার জন্য আপনাদের আলাদা করে কোন লাইসেন্স প্রয়োজন হবে না।

কি ধরনের পণ্য রাখবেন?

দোকানকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে তুলতে আপনারা কিন্তু শাড়ির পাশাপাশি বিভিন্ন আনুষঙ্গিক উপকরণ যেমন ব্লাউজ, পেটিকোট ,নাইটি প্রভৃতি রাখতে পারেন। এই ধরনের দোকানে কিন্তু ক্রেতারা খুব সহজেই আকৃষ্ট হয়ে ওঠেন।ট্র্যাডিশনাল বিভিন্ন শাড়ির সাথে হাল ফ্যাশনের কিছু লেটেস্ট ডিজাইনের কালেকশনও আপনাদের রাখতে হবে যাতে সকল বয়সের মহিলারাই আপনার দোকানে এসে শাড়ি কিনতে পারেন। একটু কম বয়সের মহিলা রয়েছেন তারা খুব একটা ভারী শাড়ি পছন্দ করেন না। অবশ্যই হাল ফ্যাশনের কিছু ট্রেন্ডলি কালেকশন তাই আপনাদের দোকানে সংগ্রহ করে রাখতে হবে। গুণগত মানের উপর অবশ্যই নজর দেবেন।

পন্যের কেমন দাম পড়বে?

আজকে আমরা আপনাদের সাথে এমন একটি দোকানের ঠিকানা শেয়ার করে দেবো যেখানে একটি অফারের জন্য ৩০ টাকাতে বেনারসি শাড়ি পেয়ে যাবেন। শুধুমাত্র তাই নয় ৫৫ টাকার মধ্যে ল্যাপটপ শাড়ি,৬৫ টাকার মধ্যে কটন লিনেন, চুমকি বসানো ফ্যান্সি শাড়ি ৬৫ টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন। এছাড়াও তসর থেকে শুরু করে জামদানি, হ্যান্ডলুম থেকে শুরু করে তাঁত, সাউথ ইন্ডিয়ান থেকে শুরু করে বেনারসি সব ধরনের শাড়ির অসম্ভব সুন্দর কালেকশন আপনারা এই দোকানে পেয়ে যাবেন যা বিভিন্ন মূল্যের এবং বিভিন্ন ভ্যারাইটিতে সাজানো হয়েছে।

অর্থাৎ একই ছাদের তলায় আপনারা বিভিন্ন ধরনের শাড়ির সম্ভার পেয়ে যাচ্ছেন এবং ব্যবসা করার জন্য কিন্তু বিভিন্ন জায়গায় কোনভাবেই ছুটতে হবে না। নিশ্চিন্তে আপনারা কিন্তু এখান থেকে পণ্য কিনে ব্যবসার কাজ শুরু করতে পারেন। একজন মধ্যবিত্ত সাধারণ মানুষ হিসেবে যদি আপনারা এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে শাড়ির ব্যবসা শুরু করতে আগ্রহী থাকেন তাহলে নিচের দেওয়া ঠিকানায় অবশ্যই যোগাযোগ করে ফেলুন। আশা করছি আমাদের আজকের এই প্রতিবেদন আপনাদের ব্যবসার কাজে অনেকটাই সহায়তা করবে।
Adi Mata manmohini Bastralaya.
Address : Gobindopur, Santipur, Nadia, west bengal.
Contact : 9563875743/8918519858.

Back to top button