কলকাতার বুকেই প্রপার লোকেশনে জলের দামে পান জমি! দাম এতো কম যে শুনলে হবেন অবাক

নিজস্ব প্রতিবেদন : বর্তমান সময়ে অর্থ সঞ্চয় করে রাখার জন্য বা অন্যান্য যে কোন কারণেই হোক জমি বা বাড়ি কেনা এক প্রকার ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। আবার অনেকেই এমন রয়েছেন যারা কিন্তু কম খরচে বাড়ি তৈরি করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি ঠিক তেমন মানুষদের জন্যই।

যদি আপনারা সম্প্রতি কম টাকার মধ্যে জমি কিনতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে কিন্তু আর দেরি করবেন না একেবারেই। আজকে আমরা যে জমিটির কথা বলছি সেখানে মোট জমি রয়েছে ২২ কাঠা। জমির চারধারে বাউন্ডারি ওয়াল দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করা রয়েছে। এমনকি জমিটিকে নিজের খরচেই উঁচু করে দিয়েছেন মালিক।

জমিটির সামনে দিয়ে একদম রাস্তা চলে গিয়েছে যা মিশেছে মেইন রোডে। অর্থাৎ আপনি চাইলেই কিন্তু খুব সহজে যাতায়াত করতে পারবেন বিভিন্ন জায়গায়। অনেক ক্ষেত্রে কি হয় নতুন জমি কেনার পর দেখা যায় সংলগ্ন এলাকায় হয়তো রাস্তাঘাট জল কিংবা বিদ্যুতের সমস্যা রয়েছে। কিন্তু এখানে জমি কেনার পর বাড়ি তৈরি করলে আপনাকে সেই ধরনের কোন সমস্যার ভুক্তভোগী হতে হবে না। তাই আপনি নিশ্চিন্তেই এই জমিটি কেনার দিকে এগোতে পারেন। এবার আসুন জমিটির অবস্থান সম্পর্কে বিশদে জেনে নেওয়া যাক।

কলকাতা উত্তর চব্বিশ পরগনার, শিবপুর মছলন্দপুর স্টেশন থেকে জমিটি মাত্র ২৫ মিনিটের দূরত্বে অবস্থিত।PWD ৪০ ফুট রাস্তার পাশে এই জমিটির অবস্থান। জমির ফ্রন্ট সাইড হচ্ছে ১৩০ ফিটের। এই ছবিগুলি প্রতি কাঠা ৫ লক্ষ টাকা দামে বিক্রয় করা হবে বলে জানা গিয়েছে। প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এই জমি গুলির একটি ভিডিও তুলে ধরা হয়েছে। যদি আপনারা জমিগুলি কিনতে আগ্রহী থাকেন তাহলে কিন্তু সেই ভিডিওটি থেকে আরও বিশদে তথ্য পেয়ে যাবেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য আজকাল জমি বাড়ি ক্রয় বিক্রয় করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসেবে দাঁড়িয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া। তবে সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্য নিয়ে কোন জিনিস খরিদ করার আগে কিন্তু অবশ্যই ভালোভাবে যাচাই করে নেওয়া প্রয়োজন। কারণ অনেক সময়ে নানান ধরনের ঠকবাজরা সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের জাল পেতে রাখে। এতে কিন্তু আপনি প্রতারণার শিকার হতে পারেন। তাই অবশ্যই কোন জিনিস কেনা বা বেচার আগে সমস্ত কিছু যাচাই করে নিতে ভুলবেন না, তা আপনার আর্থিক দিকের পক্ষেই মঙ্গল।

Back to top button