কমে যাবে সংসারের অর্ধেক খাটনি! শুধু মাথায় রাখুন এই ৯টি সহজ ও দুর্দান্ত কিচেন টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: সংসারের দৈনন্দিন কাজ করতে গিয়ে গৃহিণীদের অনেকটা সময় ব্যয় হয়ে যায়। ফলস্বরূপ দিনের শেষে আর নিজেদের জন্য সময় বের করা হয়ে ওঠে না। তবে আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না এমন কিছু বিশেষ টিপস রয়েছে যেগুলোর সাহায্যে কিন্তু খুব সহজেই বাড়ির যেকোনো কাজ করে নেওয়া যেতে পারে। আজকের এই প্রতিবেদনে গৃহিণীদের প্রয়োজনীয় এমন নয়টি কিচেন টিপস আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি। যদি এই টিপস গুলো আপনাদের ভাল লাগে তাহলে অবশ্যই শেয়ার করে নেবেন।

গৃহিণীদের প্রয়োজনীয় ৯ টি কিচেন টিপস:

১) যখন কোন প্যাকেজিং করা খাবার আমরা বাইরে থেকে কিনে নিয়ে আসি এবং সেখান থেকে কিছুটা বের করে বানানোর পরেও অনেকটা থেকে যায়; তখন দেখবেন ঠিকঠাক প্যাকেট আটকানো না হলে কিন্তু খাবারের গুণগত মান নষ্ট হয়ে যায়। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে গ্যাসে একটা চাকু গরম করে নিয়ে প্যাকেটের উপরে যদি একটু চেপে ধরতে পারেন তাহলেই কিন্তু এটা আবারও আগের মত লেগে যাবে।

২) একসাথে যখন অনেকগুলো থালা-বাসন ধোয়া হয় তখন কাচের গ্লাস যদি ভুল করে একসাথে রেখে দিয়ে থাকেন দেখবেন একটার সাথে একটা চিটে যায় আর আলাদা হতে চায় না। এই সমস্যার সমাধানের জন্য গ্লাসের জয়েন্ট এর জায়গাটাতে কয়েক ফোটা তেল দিয়ে দেবেন। এরপর একটু অপেক্ষা করে তারপর খোলার চেষ্টা করলেই দেখবেন খুব সহজে কাজটা হয়ে গেছে।

৩) চিনির সাথে পিঁপড়ের বরাবর থেকেই আত্মিক সম্পর্ক রয়েছে। বয়ামে থাকা চিনি কে পিঁপড়ের উপদ্রব থেকে বাঁচাতে এর মধ্যে কয়েক টুকরো লবঙ্গ রেখে দিতে পারেন। তাহলে কিন্তু আর এর মধ্যে পিঁপড়ে আসবে না।

৪) চাল বা ডাল কিন্তু কোন জায়গায় রেখে দিলে একটা সময়ের পর পোকা ধরে দলা বেঁধে যায়। এর জন্য আপনাদের অবশ্যই ভালোভাবে ঢাকনা লাগিয়ে রাখতে হবে এবং পোকা থেকে বাঁচার জন্য বয়ামের মধ্যে কয়েকটা তেজপাতা রেখে দেবেন।। তাহলে আর কখনো সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে না।

৫) রুটি বা পরোটা তৈরি করার পরে অনেক সময় কিন্তু অতিরিক্ত আটা মাখা অবস্থায় থেকে যায়। অনেকেই এই ডো ফেলে দিয়ে থাকেন। তবে সেটা না করে এর উপরে কিছুটা তেল মেখে নেবেন। তারপর ভালোভাবে একবার ডো’টাকে মথে নেবেন। এয়ার টাইট বক্সে ভরে এটাকে নরমাল ফ্রিজে রেখে দিলেই কিন্তু নষ্ট হবে না।

৬) দীর্ঘ সময় ধরে সবজি কাটার চাকু ব্যবহার করলে কিন্তু উপরের অংশ ময়লা হয়ে যায় এবং চকচকে ভাবটা নষ্ট হয়ে যায়। এই ময়লা দূর করে চকচকে ভাব আবারও ফিরিয়ে আনার জন্য চাকুর উপরে সামান্য পরিমাণ বেকিং সোডা ছড়িয়ে লেবুর খোসা দিয়ে কিছুক্ষণ ঘষে দেবেন। কিছুক্ষণ পরেই দেখবেন সম্পূর্ণ চাকুটা আবার আগের মত চকচকে হয়ে গিয়েছে।

৭) আদা রসুন রান্না করার আগে যখন কাটা হয় তখন হিসেব না বুঝলে কিন্তু অতিরিক্ত বেঁচে যায়। এটাকে যদি আপনি খোলা হাওয়ায় ফেলে রাখেন তাহলে কিন্তু নষ্ট হয়ে যাবে। নষ্ট হওয়ার হাত থেকে বাঁচানোর জন্য আপনাদের প্রথমে একটা টিস্যু পেপার নিয়ে এগুলো মুছে নিতে হবে। তারপর যে কোন এয়ার টাইট বক্সে ভরে এগুলোকে যত্ন সহকারে রেখে দেবেন এবং প্রয়োজনমতো ব্যবহার করবেন। কোনমতেই কিন্তু এই পদ্ধতিতে আদা রসুনের ফ্লেভার নষ্ট হবে না।

৮) আমরা যখন কোন শাকসবজি বা ফলমূল চপিং বোর্ড এর উপর কাটি তখন অপ্রয়োজনীয় অংশগুলো চারদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে যায়। যাতে এভাবে রান্নাঘর নোংরা না হয় সে কারণে চপিং বোর্ডের একটা সাইডে পলিথিন বা পলিব্যাগ লাগিয়ে দেবেন এবং খুব সাবধানে অপ্রয়োজনীয় অংশগুলোকে এর মধ্যে ভরে ডাস্টবিনে ফেলে দেবেন।।

৯) আদা রসুনের পেস্ট দীর্ঘ সময় ধরে সংরক্ষণ করার জন্য অনেকেই ফ্রোজেন করে বা আইস কিউব করে রেখে থাকেন। তবে সে সমস্ত কিছু না করে এই পেস্টের মধ্যে সামান্য পরিমাণে লবণ আরেকটু বেশি করে তেল দিয়ে খুব সহজেই বক্সে করে নরমাল ফ্রিজে ভরে রাখতে পারেন।। প্রায় ৭ দিন পর্যন্ত এই পেস্ট ভালো থাকবে এবং ফ্লেভারের কোনরকম পরিবর্তন হবে না।

Back to top button