শীতকালে বাড়িতেই খুব সহজ এই ঘরোয়া পদ্ধতিতে একবার বানিয়ে দেখুন দুর্দান্ত স্বাদের ফুলকপির পাটিসাপটা, যেই খাবে সেই করবে প্রশংসা

নিজস্ব প্রতিবেদন: শীতের মরসুম মানেই নানান ধরনের পিঠে পুলি কিন্তু অনেকেই খেয়ে থাকেন। যার মধ্যে অন্যতম হলো পাটিসাপটা। এই পাটিসাপটাকে পিঠের রাজা বলে উল্লেখ করে থাকেন অনেকে। নারকেল বা ক্ষীরের পাটিসাপটা সাধারণত তৈরি করা হয়। তবে আজ আমরা সম্পূর্ণ ইউনিক ‘ফুলকপির পাটিসাপটা’র রেসিপি আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব। অত্যন্ত সহজ পদ্ধতিতে অল্প সময়ের মধ্যেই আপনারা এটা তৈরি করে নিতে পারবেন। চলুন রেসিপিটি জেনে নেওয়া যাক।

ফুলকপির পাটিসাপটা তৈরির জন্য আপনাদের প্রথমে বড় সাইজের একটি তাজা ফুলকপি নিয়ে নিতে হবে। তারপর পাটিসাপটার জন্য একটা ময়দার গোলা তৈরি করে নিন। একটা পাত্রের মধ্যে পরিমাণ মতন ময়দা, চালের গুঁড়ো আর লবণ মিশিয়ে ফেলুন। এবার জল দিয়ে এর একটা গোলা তৈরি করে নিন। খেয়াল রাখবেন ময়দার গোলার কনসিসটেন্সি যেন ঠিক থাকে এবং এর মধ্যে কোনরকম দলাভাব না থাকে। ফুলকপির পাটিসাপটার জন্য কপির শুধুমাত্র ফুলের অংশটি নিতে হবে, ডাটা অংশটি নেওয়ার প্রয়োজন নেই। ফুলগুলোকে ছোট টুকরো করে কেটে ফেলুন। এবার ফুলকপির পুরের জন্য আপনাদের একটা স্পেশাল ভাজা মশলা তৈরি করে নিতে হবে।

তার জন্য গ্যাসে একটা কড়াই বসিয়ে কিছুটা পরিমাণ ধনে, মৌরি, গোটা জিরে, গোটা গরম মসলা, শুকনো লঙ্কা দিয়ে নাড়াচাড়া করে নিতে হবে। মসলাটাকে ড্রাই রোস্ট করা হয়ে গেলে একটা পাত্র নামিয়ে ঠান্ডা করে বেটে ফেলুন। এবার ওই কড়াইয়ের মধ্যেই কিছুটা পরিমাণ সরষের তেল দিয়ে দিন। তারপর তেলের মধ্যে সামান্য পাঁচফোড়ন আর একেবারে ছোট করে কাটা আলু যোগ করে দিন।

এবার যে ফুলকপি গুলো কেটে রেখেছিলেন সেটাকেও এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। সামান্য পরিমাণে লবণ আর হলুদ যোগ করে নাড়াচাড়া করতে থাকুন। কিছুক্ষণ ঢাকনা চাপা দিয়ে রাখুন এবং তারপর আবারো খুলে নাড়াচাড়া করুন। আদা বাটা যোগ করে যতক্ষণ পর্যন্ত না কাঁচা গন্ধ চলে যাচ্ছে অপেক্ষা করুন। এরপর এক এক করে মসলা হিসেবে শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো, ভাজা মসলা দিয়ে মিশিয়ে নিন। গুঁড়ো মসলা যাতে পুড়ে না যায় তার জন্য খুব সামান্য পরিমাণে জল দিয়ে দেবেন।

খুন্তি দিয়ে আলু আর ফুলকপি একটু ভেঙে দিয়ে ওপরে ধনেপাতা ছড়িয়ে দিন। ব্যাস তাহলেই ফুলকপির পুর তৈরি হয়ে যাবে। যতক্ষণ পুর ঠান্ডা হচ্ছে, ততক্ষণ ময়দার তৈরি গোলাটা একটু ফেটিয়ে নিন। এবার গ্যাসে একটা তাওয়া বসিয়ে এক হাতা করে ময়দার গোলা সেখানে দিয়ে দিন। এর উপরে ফুলকপির যোগ করুন পরিমাণমতো। তারপর ভালোভাবে পাটিসাপটা ফোল্ড করে নিতে হবে। সামান্য একটু তেল বা ঘি উপর থেকে ছড়িয়ে দেবেন। ব্যাস দুটো দিক ভাজা হলেই কিন্তু পাটিসাপটা তৈরি হয়ে যাবে। ফুলকপির পাটিসাপটার এই অসাধারণ রেসিপি খেতে কেমন লাগলো তা জানাতে অবশ্যই ভুলবেন না।

Back to top button