গরম ভাত বা রুটির সাথে জাস্ট জমে যাবে! এই সহজ ঘরোয়া পদ্ধতিতে একবার ট্রাই করে দেখুন সিমের এই সুস্বাদু ও ইউনিক রেসিপি

নিজস্ব প্রতিবেদন: মাছ মাংস এবং ডিম জাতীয় আমিষ রেসিপি ছাড়াও কিন্তু বাঙালির হিসেবে এমন বহু রেসিপি রয়েছে যা রসনা তৃপ্তি করতে সাহায্য করতে পারে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনেও আমরা পাঠকদের সাথে এমনই একটি রেসিপি শেয়ার করে নেব। একেবারে সাধারণ ঘরোয়া উপকরণ দিয়ে তৈরি শিমের এই রেসিপিটি গরম ভাত থেকে শুরু করে রুটি পরোটা সবকিছুর সঙ্গেই জমে যাবে।

দুর্দান্ত স্বাদের এই রেসিপি কিন্তু বানাতেও খুব একটা সময় লাগবে না। তাই মাঝেমধ্যেই এই স্বাদের পরিবর্তন আনার জন্য আপনারা অবশ্যই এই ধরনের রান্না ট্রাই করে দেখতে পারেন। তাহলে এবার আর সময় নষ্ট না করে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক এবং জেনে নেওয়া যাক এই রান্নাটির পদ্ধতি।

শিমের দারুন টেস্টি রেসিপি:

প্রথমেই আপনাদের রান্নাটি করার জন্য ৪০০ গ্রাম শিম নিয়ে ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। তারপর এর দুই প্রান্তের অংশ কিছুটা কেটে সরু সুতোর মতন জিনিসটিকে বের করে নিতে হবে। অবশ্যই এই সুতোর মতন অংশটাকে বের করতে ভুলবেন না কারণ রান্নার পর এটি মুখে পড়লে খেতে খুবই খারাপ লাগে।শিমগুলিকে দুই টুকরো করে কেটে ফেলুন।

এবার গ্যাসে একটি করাই বসিয়ে তাতে দুই টেবিল চামচ পরিমাণ সরষের তেল দিন। তেল ভালোভাবে গরম হয়ে গেলে এতে অল্প একটু লবণ আর হলুদের গুঁড়ো যোগ করুন। তারপর কেটে রাখা শিম গুলোকে কড়াইতে দিয়ে দেবেন। ভালো করে নাড়াচাড়া করে নিন যাতে শিমের সাথে লবন আর হলুদ মিশে যায়। ঢাকা দিয়ে এই পর্যায়ে কিছুক্ষণ রান্না করুন যাতে এটি ভাজা ভাজা হয়ে যায়।৫ থেকে ৬ মিনিট পর শিম গুলোকে তুলে নেবেন।

আপনারা চাইলে কিন্তু ভাজা না করে শিম গুলোকে হালকা ভাপিয়েও রান্না করতে পারেন। ওই কড়াইতেই তিন থেকে চার টেবিল চামচ মতন সরষের তেল যোগ করুন এবং তাতে দিয়ে দিন হাফ চা চামচ কালোজিরা আর দুটি চেরা কাঁচালঙ্কা। একটু নাড়াচাড়া করে এতে মিহি করে গ্রেট করে রাখা রসুন আর আদা দিয়ে দিন।লো ফ্ল্যেমে মিনিটখানেক নাড়াচাড়া করে নেবেন যাতে কাঁচা গন্ধ চলে যায়।

পরবর্তী ধাপে মিডিয়াম সাইজের একটা পেঁয়াজকুচি রান্নাতে যোগ করুন এবং যতক্ষণ পর্যন্ত না সুন্দর গন্ধ ছাড়ছে ততক্ষণ নাড়াচাড়া করুন। ৪ মিনিট পর্যন্ত পেঁয়াজ কষিয়ে নেওয়ার পর রান্নাতে সামান্য পরিমাণ হলুদের গুঁড়ো, হাফ চামচ লাল লঙ্কার গুঁড়ো, হাফ চামচ ধনে গুঁড়ো, হাফ চামচ জিরা গুঁড়ো এবং এক টেবিল চামচ বেসন যোগ করুন। অবশ্যই কিন্তু বেসন দিতে ভুলবেন না এবং এটি দেওয়ার পর কিছুক্ষণ সময় সমস্ত উপকরণকে একসঙ্গে ভাজা ভাজা করে নেবেন।

মসলা থেকে সুন্দর গন্ধ বেরোতে শুরু করলে এর মধ্যে একটা বড় সাইজের টমেটো ছোট করে কেটে যোগ করুন এবং দিয়ে দিন স্বাদমতো লবণ। যেহেতু বেসনের ব্যবহার করা হয়েছে তাই মসলা কিন্তু তাড়াতাড়ি শুকিয়ে আসবে এজন্য আপনারা অল্প করে গরম জলের ছিটে দেবেন। মসলা ভালো করে কষানো হয়ে গেলে আগে থেকে ভেজে রাখা শিম গুলোকে রান্নায় যোগ করে দিন। সমস্ত উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে অনবরত নাড়াচাড়া করতে থাকুন। বেসনের ব্যবহার করার কারণে তলা ধরে থাকার প্রবণতা থাকবে সুতরাং নাড়াচাড়া করা একেবারেই থামাবেন না।

বেশ কিছুক্ষণ এভাবে কষিয়ে নেওয়ার পর এক কাপ পরিমাণ গরম জল যোগ করে নাড়াচাড়া করুন। স্বাদ ব্যালেন্স করার জন্য ছোট চামচের এক চামচ চিনি যোগ করে দেবেন। তবে রান্নায় চিনি পছন্দ না করলে দেওয়ার দরকার নেই। ঢাকা দিয়ে পাঁচ থেকে ছয় মিনিট পর্যন্ত মিডিয়াম টু লো ফ্লেমে রান্না করুন এবং সবশেষে ধনেপাতার কুচি ছড়িয়ে নাড়াচাড়া করে অসাধারণ এই রেসিপিটি পরিবেশন করুন। খেতে কেমন লাগলো তা অবশ্যই কিন্তু আমাদের কমেন্ট বক্সে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Back to top button