শীতের কনকনে ঠাণ্ডায় খুব সহজ এই ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে ফেলুন দারুণ টেস্টি গোলাপ পিঠা, যেই খাবে সেই করবে প্রশংসা

নিজস্ব প্রতিবেদন: শীতকাল মানেই কিন্তু নিত্যনতুন পিঠেপুলির সমাহার। গোটা বছর ধরেই মানুষ কিন্তু এই খাবারটার জন্য অপেক্ষা করে থাকেন। সাধারণত গ্রামাঞ্চলের দিকে পৌষ পার্বণ উপলক্ষে বিভিন্ন ধরনের পিঠের রেসিপি তৈরি করা হয়ে থাকে। তবে আজ আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি একেবারেই ইউনিক গোলাপ পিঠের রেসিপি। এই পিঠা তৈরি করা খুবই সহজ এবং অল্প সময়ের মধ্যেই যেহেতু হয়ে যাবে তাই আপনারা সবাই তৈরি করে নিতে পারবেন। সুতরাং আর সময় নষ্ট না করে আমাদের প্রতিবেদনটি একেবারে শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন।

এই পিঠে তৈরি করার জন্য আপনাদের প্রথম এই চালের গুঁড়ো দিয়ে একটা ডো তৈরি করে নিতে হবে। তবে তার আগে খেজুর গুড়ের পাটালি নিয়ে সেটাকে গ্রেট করে ফেলুন। তারপর গ্যাসে একটা করাই বসিয়ে ভালোভাবে জল ফুটিয়ে সামান্য কিছু লবণ যোগ করে দিন। এবার এর মধ্যে কিছুটা পরিমাণ চালের গুঁড়ো আর ময়দা মিশিয়ে দেবেন। জলের সাথে খুব ভালো করে আপনাদের উপকরণগুলো মিশিয়ে দিতে হবে। চাপা দিয়ে তিন থেকে চার মিনিট পর্যন্ত এটাকে রেখে দিন। চালের গুঁড়ির ডো হালকা গরম অবস্থায় থাকতে থাকতেই ভালোভাবে মাখিয়ে নিতে হবে। আবারো গ্যাসের করাই বসিয়ে সামান্য জল গরম করে তাতে গ্রেট করা পাটালি দিয়ে দিন। যতক্ষণ পাটালি জ্বাল হচ্ছে ততক্ষণ আপনাদের ডো থেকে লেচি কেটে নিতে হবে।

এবার এই লেচি গুলোকে বেলে আপনাদের গোলাপ পিঠের জন্য গোলাপ তৈরি করতে হবে। গোলাপের পাপড়ি যাতে সমান থাকে তার জন্য একটা গ্লাস নিয়ে মাপ করে কাটবেন। গোলাপ তৈরি করার জন্য ছোট ছোট পাঁচটি লেচি গ্লাসের সাহায্যে কেটে পরপর লম্বাটে করে সাজিয়ে নেবেন। পাপড়ি খুলে না যায় তার জন্য একটু উপর থেকে চিপে দিতে হবে। তারপর পাঁচটা লেচি হোল্ড করে একসঙ্গে মাঝখান থেকে কেটে ফেলুন। দেখবেন গোলাপ ফুল তৈরি হয়ে গিয়েছে। পাপড়ি গুলোকে একটু খুলে দেওয়ার জন্য লেচি গুলোকে আলতো করে টান দিতে পারেন।

সমস্ত লেচি থেকে গোলাপ তৈরি হয়ে যাওয়ার পরে কড়াইতে পরিমাণ মতো তেল গরম করে আপনাদের গোলাপ গুলো ভেজে নিতে হবে। ভাজা হয়ে গেলে এগুলোকে তেল থেকে ছেঁকে তুলে নিন এবং একদম প্রথমে যে পাটালি জাল দিয়ে রেখেছিলেন তার মধ্যে এগুলোকে ডুবিয়ে রাখুন। ব্যস খুব সহজেই এভাবে গোলাপ পিঠে তৈরি করে বাড়িতে আপনারা পরিবেশন করতে পারেন। শীতকালে ছুটির দিন হিসেবে হাতে একটু সময় নিয়ে অবশ্যই এই রেসিপি তৈরি করতে ভুলবেন না। খেতে কেমন লাগলো তা অবশ্যই আমাদের সঙ্গে কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নেওয়ার অনুরোধ রইল।

Back to top button