এগিয়ে আসেনি কোনো প্রকাশনী! বইমেলায় নিজের লেখা জেরক্স করে মাত্র ৫ টাকায় বিক্রি করলেন এই অসহায় বৃদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমাদের দেশের আনাচে-কানাচে নানান প্রতিভা লুকিয়ে রয়েছে। বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আজকাল খুব সহজেই এই সমস্ত প্রতিভার পরিচয় আমরা পেয়ে থাকি। নাচ, গান, কবিতা, আবৃত্তি থেকে শুরু করে খেলাধুলা সবকিছুতেই দক্ষ মানুষ রয়েছেন এই দেশে। রবীন্দ্রনাথ শরৎচন্দ্রের এই দেশে বহু মানুষ লেখালেখির মতন কাজের সাথেও যুক্ত রয়েছেন। লেখালেখি বলতে আমরা প্রধানত বলছি বইয়ের কথা। সোশ্যাল মিডিয়ার যুগ হলেও এখনো বহু মানুষ কিন্তু বেশি সময় কাটাতে পছন্দ করেন বইয়ের সাথে। আসলে যে কোন বইয়ের সুবাস মানুষকে এক নতুন ভালোবাসা খর আবেগের সাথে বেধে রাখে। বিশেষ করে নতুন বইয়ের মধ্যে যে গন্ধ থাকে সেটা কখনোই লিখে বা বলে বর্ণনা করা সম্ভব নয়।

প্রতিবছর শীতকালে দেশের বিভিন্ন অংশে বইমেলার আয়োজন করা হয়ে থাকে। বিশেষ করে কলকাতার বইমেলার খ্যাতি কিন্তু সব জায়গাতেই ছড়িয়ে রয়েছে। নতুন বছরের জানুয়ারি মাসেই শুরু হবে এই বই মেলা।বইমেলা মানেই বহু বইয়ের স্টল। সেখানে গিয়ে মানুষ নিজের পছন্দের বই প্রতি সহজেই কিনতে পারেন। তবে গতবছর একটি স্টল দেখা গিয়েছিল যে স্টলটির কাছে মানুষ যায়নি, স্টল হেটেই যেন মানুষের কাছে এসেছিল। নিশ্চয়ই প্রতিবেদনটি এতদূর করার পর আপনারাও ভাবছেন এ আবার কেমন ঘটনা! আসলে গত বছর বইমেলায় একটি অদ্ভুদ দৃশ্য সকলের সামনে এসেছিল।

যেখানে এক বয়স্কা মহিলাকে দেখা যাচ্ছিল তিনি নিজের লেখা কবিতা একটি পৃষ্ঠায় জেরক্স করে সকলের হাতে তুলে দিচ্ছিলেন মাত্র ৫ টাকা বিক্রয় মূল্যে। সব থেকে আশ্চর্যের ব্যাপার বহু মানুষ কিন্তু এটি ক্রয় করেছিলেন। বিশেষ করে ওই মহিলার এই অভিনব পদ্ধতি সকলকে আকৃষ্ট করে নিয়ে এসেছিল তার দিকে। কোন না কোন দিক দিয়ে যেন এটি তার জীবন সংগ্রামের পরিচয় বহন করে। জানা গিয়েছিল এই ভদ্রমহিলার নাম রুনু মল্লিক। আসলে নিজেদের প্রতিভা বা শৈল্পিক ক্ষমতা প্রকাশ করার ইচ্ছে সকলের মধ্যেই থাকে।

তবে এই ধরনের কবিতা বা গল্প পাবলিশ করার জন্য যেরকম অর্থ প্রয়োজন সেটা সকলে দিতে পারেন না। রুনু দেবীও সেই সমস্ত মানুষের একজন অংশ। তবে তিনি নিজের শৈল্পিক ক্ষমতাকে থামিয়ে রাখেননি। নিজের লেখা নিজেই বিক্রি করতে বেরিয়ে পড়েছেন তিনি। তবে সাধারণ মানুষ ও যে তাকে অনেকটা সহায়তা করেছেন এই বিষয়ে তাতে কোন সন্দেহ নেই। এই প্রসঙ্গে আপনাদের কোন মতামত থাকলে তা আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন।

Back to top button