প্রতিদিন গাছের গোড়ায় দিয়ে দেখুন হলুদ! মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে পাবেন দুর্দান্ত রেজাল্ট, না দেখলে হবে না বিশ্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদন: রান্নাঘরের প্রধান এবং অন্যতম মসলা বলতে আমাদের মাথাতে প্রথমে যার নাম আসে সেটা হলো হলুদ। রান্নায় স্বাদ আর রং দুটোই নিয়ে আসার জন্য এর ব্যবহার হয়ে থাকে। যতই অন্যান্য বিভিন্ন মসলা আপনারা ব্যবহার করুন না কেন দেখবেন হলুদ ব্যবহার না করলে কোনভাবেই কিন্তু সেই রান্নায় জমে না। আসলে রান্নার মধ্যে প্রধান স্বাদ এই সমস্ত উপকরণের কারণেই বেড়ে থাকে।

তবে শুধুমাত্র রান্না ছাড়াও যে অন্যান্য অনেক জায়গাতে হলুদের ভূমিকা রয়েছে সেটা হয়তো আপনাদের জানা নেই। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা সেই তথ্যই আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করে নিতে চলেছি। রান্নাঘরের বিভিন্ন উপকরণের মধ্যে আমরা আজ বলবো হলুদ আর দারচিনির কথা,যা পচে যাওয়া গাছকেও সুস্থ করে তোলে এবং বিষাক্ত পোকা মাকড়ের হাত থেকে বাঁচায়।

আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছেন যারা বাগান করতে ভীষণ ভালোবাসেন। তবে যতই ফুল আর ফল লাগানো হোক না কেন সঠিক পরিচর্যা ছাড়া কিন্তু গাছ কোনভাবেই বড় হবে না। দেখবেন পরিচর্যা ছাড়া যখন কোন গাছ লাগানো হয় তখন সেটা অল্প সময়ের মধ্যেই শুকিয়ে যায় অথবা ফুল ফল আসলেও সেটা ঝরে পড়ে। আবার অনেক ক্ষেত্রেই হয় ব্যাপক পোকামাকড়ের আক্রমণ।

এই সমস্ত সমস্যা থেকে মুক্তির জন্য আমরা নানান ধরনের জিনিস ব্যবহার করে থাকি। তবে বাজারের বিভিন্ন রাসায়নিক সার ছাড়াও এমন অনেক উপকরণ রয়েছে যেগুলো দিয়ে এই সমস্যা থেকে আপনারা মুক্তি পেতে পারেন। এই যেমন ধরুন হলুদ।বাড়িতে বিভিন্ন ফল-সবজির গাছ যেমন লেবু, লঙ্কা অথবা লাউ প্রভৃতি লাগিয়েছেন কিন্তু গাছ শুকিয়ে যাচ্ছে বা ফুল ফল ধরছেনা। ট্রাই করে দেখুন আজকের এই বিশেষ টিপস।

কিভাবে হলুদের প্রয়োগ করবেন?

১) ফুল বা ফল ঝরে পড়ার সমস্যা, পাতা হলুদ হয়ে যাওয়া বা কুঁকড়ে যাওয়া প্রভৃতির হাত থেকে রক্ষা পেতে হলে আপনারা হলুদ এবং দারচিনির গুঁড়ো গাছের গোড়ায় গোড়ায় দিয়ে দিন। যা মিলিবাগ, লাল পিঁপড়ে ধরার হাত থেকে গাছকে বাঁচাবে। তবে মনে রাখবেন একটি পচে যাওয়া গাছের গোড়ায় দুটি উপকরণ দিলেই মিলবে সুরাহা।

২) দ্বিতীয় পদ্ধতিতে আপনারা কিন্তু হলুদ গুঁড়ো দিয়ে একটা দ্রবণ বানিয়েও গাছে প্রয়োগ করতে পারেন। তার জন্য এক লিটার জলে কিছুটা পরিমাণ হলুদ গুঁড়ো আর ডিটারজেন্ট পাউডার মিশিয়ে গাছে প্রয়োগ করতে পারেন।

Back to top button