একদম সামান্য পুঁজিতে শুরু করুন এই দুর্দান্ত ও ইউনিক ব্যবসা! কয়েক মাসেই ইনকাম হবে ৫০ লাখ পর্যন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিজেকে আর্থিকভাবে স্বাধীন আর স্বাবলম্বী করে তোলার জন্য বর্তমানে মানুষের কাছে প্রধান হাতিয়ার হয়ে উঠেছে ব্যবসা। চাকরির ক্ষেত্রেও অনেকটা দুর্বল হয়ে যাওয়ায় মানুষ এখন ব্যবসার দিকেই বেশি ঝুঁকছেন। আসলে ব্যবসার কিছু সুবিধাজনক দিক রয়েছে। প্রথমত কখনোই অন্যের উপর নির্ভরশীল থাকতে হয় না। দ্বিতীয়তঃ সঠিকভাবে ব্যবসা দাঁড়িয়ে গেলে কখনোই ভবিষ্যতের জন্য চিন্তা করতে হয় না। তবে এই দুটো দিক বজায় রাখার জন্য আপনাকে অবশ্যই কিন্তু সঠিক ব্যবসার পদ্ধতি গ্রহণ করতে হবে।

আপনার আর্থিক সচ্ছলতা নির্ভর করবে আপনি কি ধরনের ব্যবসা বেছে নিচ্ছেন এবং কিভাবে তা শুরু করছেন সেটার উপরে। যদি আপনি নতুন ব্যবসায়ী হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনাকে এমন ব্যবসা শুরু করতে হবে যাতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা কম। কারণ পুরনো ব্যবসায়ীদের সাথে টেক্কা দিতে গেলে কিন্তু আপনার সমস্যা হতে পারে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনার জন্য নিয়ে চলে এসেছি এমন কিছু বিজনেস আইডিয়া যা খুব সহজেই আপনাকে দাঁড়াতে সাহায্য করবে।

কি ধরনের ব্যবসা শুরু করবেন?

শুরুতেই আমরা জানিয়েছি যদি নতুন ব্যবসায়ী হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে অবশ্যই এমন ব্যবসা শুরু করতে হবে যার বাজারে প্রতিদ্বন্দ্বিতা কম। বর্তমান সময়ে এরকম ব্যবসা বলতে আমরা বলতে পারি ফ্লাই অ্যাশের ইটের ব্যবসার কথা। দিন প্রতিদিন এমনি ইটের তুলনায় এর চাহিদা বেড়েই চলেছে। এর কিন্তু কোন রকমের অফ সিজন নেই। অর্থাৎ বছরের যে কোন সময় যেকোনো দিনেই আপনারা এটা শুরু করতে পারেন। এই ব্যবসার জন্য সবথেকে প্রধান বিষয়টি হচ্ছে কাঁচামাল। যদি সঠিকভাবে আপনারা কাঁচামাল সংগ্রহ করতে পারেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু ব্যবসা দাঁড় করাতে কোন রকমের সমস্যা হবে না। এছাড়াও বলব মেশিনের কথা।

ব্যবসাটি শুরু করার জন্য কি কি প্রয়োজন?

যারা ভাবছেন এই ব্যবসাটি শুরু করার জন্য বেশ বড় জায়গার প্রয়োজন হবে। তাদের উদ্দেশ্যে বলবো মেশিনের ক্যাপাসিটি অনুযায়ী কিন্তু জায়গা ছোট থেকে বড় বিভিন্ন রকমের হতে পারে। সুতরাং এ নিয়ে চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। সম্পূর্ণ ব্যাপারটাই নির্ভর করবে আপনি ব্যবসা কি পরিসরে শুরু করতে চান তার উপর। এই ব্যবসাটি শুরু করার জন্য আপনাদের একটা পলিউশন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে।

এছাড়াও গ্রাম পঞ্চায়েত অথবা মিউনিসিপ্যালিটির তরফ থেকেও একটি সার্টিফিকেট প্রয়োজন হবে। ফ্লাই অ্যাশের ইট তৈরির জন্য মোটামুটি যে মেশিন পাওয়া যায় তা ৬০ হাজার থেকে সাধারণত শুরু হয়ে থাকে এবং ২২ লক্ষ টাকায় শেষ হয়। প্রত্যেকটা মেশিনের ক্যাপাসিটি অর্থাৎ উৎপাদন ক্ষমতা কিন্তু অনেকটাই আলাদা।মোটামুটি যদি আপনি ছোটোর মধ্যে শুরু করতে চান সেক্ষেত্রে আপনার প্রায় ১০ কাঠা জায়গার প্রয়োজন পড়বে।

সাধারণত এই ব্যবসা শুরু করতে যে মেশিন দেওয়া হয় তাতে কিন্তু এক বছরের কাছাকাছি ওয়ারেন্টি দেওয়া হয়।। মোটর আপনারা নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী নিতে পারেন। এবার বলব মেশিন কেনার সুযোগ্য ঠিকানার কথা। চেষ্টা করবেন মেশিন কেনার জন্য অবশ্যই ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিটের সাথে যোগাযোগ করতে। কারণ অন্যান্য জায়গার তুলনায় এখানে মেশিনের দাম কিছুটা কম হয়ে থাকে।

মেশিন কেনার সুযোগ্য ঠিকানা:

আমরা আজ মেশিন কেনার একটি সুযোগ্য জায়গার ঠিকানা নিচে উল্লেখ করে দিচ্ছি। যদি আপনারা এই ব্যবসা শুরু করতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে আর সময় নষ্ট করবেন না।
Lakshmi Narayan engineering works
Contact : 9836271192/6295981120/8013136908.

Back to top button