সামান্য পুঁজি দিয়ে শুরু করুন এই দুর্দান্ত ব্যবসা! প্রতিবছর আয় হবে ৬০ লাখ, চাহিদা থাকবে ১০০ বছর অবধি

নিজস্ব প্রতিবেদন: বর্তমান সময়ে বেশিরভাগ মানুষ অর্থ উপার্জনের জন্য ব্যবসাকেই বেছে নিতে চাইছেন। তবে নতুন ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে সব থেকে বেশি সমস্যা হচ্ছে ব্যবসার ক্ষেত্র বেছে নেওয়া। কারণ কি ধরনের ব্যবসা শুরু করবেন সেটাই যদি না জানা থাকে তাহলে অর্থ উপার্জনে সমস্যা দেখা দেবে এটাই কিন্তু স্বাভাবিক।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই নির্দিষ্ট মূলধনের মধ্যে আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি একটি ইউনিক বিজনেস আইডিয়া যা কমবেশি নতুন ব্যবসায়ীরা সকলেই শুরু করতে পারেন।। যেহেতু নতুন ব্যবসায়ী হিসেবে আপনারা কাজ শুরু করতে চাইছেন তাই আপনাদের সবসময় এমন ব্যবসা বেছে নিতে হবে যেগুলোতে প্রতিযোগিতা কম এবং বাজার চাহিদা বেশি।। চলুন তাহলে সময় নষ্ট না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক এবং দেখে নেওয়া যাক সঙ্গে থাকা ভিডিও।

কি ধরনের ব্যবসা শুরু করবেন?

যেহেতু নতুন ব্যবসায়ী তাই অবশ্যই আপনাদের বাজার চাহিদা এবং ধারনা দুটোই কিন্তু মাথায় রাখতে হবে। আজ আমরা আপনাদের যে ব্যবসার কথা বলব সেটা হল প্লাস্টিকের বিপরীতে একটি বিকল্প পদ্ধতি। এটি হল বায়ো-ডিগ্রেডিবল ব্যাগের ব্যবসা। খুব সহজেই প্লাস্টিক যেহেতু এখন বাজারে একেবারেই চলছে না তাই এই ব্যাগগুলি তৈরি করে আপনারা বিক্রি করতে পারেন অথবা ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট থেকে কিনে স্থানীয় বাজারে বিক্রি করতে পারেন।।

তবে সবথেকে ভালো হবে যদি আপনারা মেশিন কিনে নেওয়ার পর নিজেদের ফ্যাক্টরিতেই এটা তৈরি করেন এবং কাজ শুরু করেন। পর্যাপ্ত মূলধন থাকলে এবং কাজের পরিধি বেড়ে গেলে শুধুমাত্র রাজ্যের মধ্যে নয় দেশের বিভিন্ন প্রান্তেও কিন্তু আপনারা জিনিসের সাপ্লাই দিতে পারবেন যাতে অর্থের উপার্জন অনেকটাই বেড়ে যাবে।

মেশিনের চাহিদা এবং মূলধন:

এই ব্যবসাটি শুরু করতে গেলে একটি মোটর আর হপার সহ আপনাদের মেশিন প্রয়োজন হবে যা খুব সহজেই বায়ো-ডিগ্রেডেবল ব্যাগ তৈরি করতে আপনাকে সাহায্য করবে। যদি প্রথম থেকেই আপনার হাতে বেশ ভালো অংকের মূলধন থাকে তাহলে আপনারা মেশিন কিনে নির্দিষ্ট জায়গায় ব্যবসা শুরু করে দিতে পারেন। এই ব্যাগ সাধারণত বিভিন্ন স্টার্চ এর দানা দিয়ে তৈরি করা হয়ে থাকে যা এই মেশিনের মধ্যে দেওয়া হয়।

প্রথম মেশিনের স্টার্চ গ্রাইন্ড করে নেওয়ার পর সেটা কম্প্রেসার মেশিনে রোল তৈরি করে দেয়। রোল তৈরি করার পর প্রিন্টিং শেষে আপনারা খুব সহজেই এই ব্যাংকগুলোকে বাজারজাত করে ফেলতে পারবেন। যেহেতু পুরো জিনিসটাই অত্যন্ত পরিবেশবান্ধব তাই বাজার চাহিদা নিয়ে সন্দেহের কোন অবকাশ থাকার প্রয়োজন নেই ‌। যেহেতু মেশিন গুলি সম্পূর্ণ অটোমেটিক তাই আপনাদের কিন্তু সবিশেষ শ্রমিকের প্রয়োজন পড়বে না। শুধুমাত্র মেশিন অপারেট করার জন্য 5 থেকে 6 জন শ্রমিক নিলেই কাজ চলে যাবে।

মেশিন কেনার সুযোগ্য ঠিকানা:

একেবারে মেনুফ্যাকচারিং ইউনিট থেকে আপনারা যদি মেশিন কিনে নেন তাহলে কিন্তু সুলভ মূল্যে পেয়ে যাবেন। নিম্নে ঠিকানা উল্লেখ করা হলো।
Royal machinery
Eser mineral complex
Muragacha,jugberia, Sodepur road , opposite lokenath mandir, Madhyamgram.
Contact : 7980111516/8910085500

Back to top button