কলকাতার একদম কাছেই দুর্দান্ত লোকেশনে সুন্দর ডিজাইনের এই দোতলা বাড়ি বিক্রি, না দেখলে মিস করবেন

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিজস্ব একটা বাড়ি তৈরির চেষ্টা কিন্তু কমবেশি সকলের মধ্যেই থাকে। তবে অনেক ক্ষেত্রেই নানান ধরনের বাধা কিন্তু আমাদের সামনে চলে আসে। কখনো হয়তো বাড়ি তৈরি করার বাজেট বেশি হয়ে যায় আবার কখনো আশেপাশের পরিবেশ আমাদের পছন্দ হয় না। মূল্য বৃদ্ধির এই বাজারে মনের মতন কোন জিনিস পাওয়াটাই তো ভীষণ কঠিন ব্যাপার। তবে চেষ্টা করলে কি না হয়?

পাঠকদের উদ্দেশ্যে আমরা এর আগেও বিভিন্ন প্রতিবেদনের মাধ্যমে নানান জায়গায় জমি আর বাড়ির খোঁজ নিয়ে এসেছি। আবারো এরকম একটি বাড়ির বিক্রির তথ্য আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব। চলুন তাহলে আর অপেক্ষা না করে শুরু করা যাক আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন।

আজ যে বাড়িটি সম্পর্কে আমরা আপনাদের জানাবো সেটি চন্দননগর এর মান্না বাগান এলাকায় অবস্থিত। জগদ্ধাত্রী পূজোর জন্য অন্যতম বিখ্যাত এই শহর চন্দননগরকে আপনারা কম বেশি সকলেই চেনেন। এখানেই একটি বাড়ি বিক্রি হয়েছে।১ কাঠা ১২ ছটাক জমির উপর এই দোতলা বাড়িটি তৈরি করা হয়েছে।

বাড়িটির মধ্যে চারটি রুম, দুটি টয়লেট এবং একটি কিচেন রয়েছে। এছাড়াও বেশ বড় সাইজের দুটো বেলকনি বা বারান্দা পেয়ে যাচ্ছেন আপনারা। মাত্র ৫ বছর আগেই বাড়িটির কাজ শেষ করা হয়েছে। অর্থাৎ প্রায় নতুন বাড়িই বলা চলে। বাড়িটিতে আপনারা খুব সহজেই ভবিষ্যতের লোন পেয়ে যেতে পারবেন তাই কোন অসুবিধা হবে না।

বাড়িটির সামনে ১৬ ফুটের চওড়া রাস্তা রয়েছে। অর্থাৎ বেশ ভালো এরিয়াতেই এটি অবস্থিত। আসুন এবারে একটু বাড়িটির যোগাযোগ ব্যবস্থা দেখে নেওয়া যাক। এখান থেকে মাত্র ৫০০ মিটারের মধ্যে রয়েছে চন্দননগর রেলওয়ে স্টেশন। বাড়ি থেকেই কিন্তু আপনারা ট্রেনের আওয়াজ পেয়ে যাবেন। এছাড়াও ব্যাঙ্ক, স্কুল, বাজার থেকে শুরু করে হাসপাতাল সবকিছুই আপনারা এখানে পাবেন হাতের মুঠোয়। এখান থেকে হাওড়া রেলওয়ে স্টেশনে দূরত্ব মাত্র ৩৩ কিলোমিটার।

এছাড়াও কলকাতা এয়ারপোর্ট পেয়ে যাবেন মাত্র ৪২ কিলোমিটারের মধ্যে। অর্থাৎ সবমিলিয়ে দুর্দান্ত লোকেশন এর মধ্যে রয়েছে বাড়িটি। সমস্ত দিক বিবেচনা করে এই বাড়িটির দাম রাখা হয়েছে ৪৫ লক্ষ টাকা। যারা বাড়িতে কিনতে আগ্রহী খুব সহজেই যোগাযোগ করতে পারেন নিচের দেওয়া নম্বরে। এই ধরনের আরো জমি বা বাড়ির খোঁজ পেতে নজর রাখতে থাকুন আমাদের পোর্টালের পাতায়।

Contact – 8240174758(Rajib)
8910254563(sushaman)

Back to top button