বাড়িতেই এই সহজ গোপন পদ্ধতিতে রান্না করে দেখুন দুর্দান্ত স্বাদের রুই মাছ দিয়ে ঝিঙের ঝোল, খাবেন চেটেপুটে

নিজস্ব প্রতিবেদন: বরাবর থেকেই কিন্তু গ্রাম বাংলার বিভিন্ন রেসিপি এক কথায় অসাধারণ। আজকাল শহরে যান্ত্রিকতার ভিড়ে এই ধরনের রেসিপিগুলো কিন্তু আর খুঁজে পাওয়া যায় না। আসলে বর্তমান সময়ে মানুষ এতটাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন যে কোনরকম নিত্যনতুন রান্না করার বদলে নির্ভর করে থাকেন বিভিন্ন হোটেল আর রেস্টুরেন্ট এর উপর। তবে একটা সময় আমাদের মা দিদিমাদের হাতের রান্নার স্বাদ কিন্তু সেই নামিদামি হোটেলের রান্নায় খুঁজে পাওয়া যায় না।

সম্প্রতি এই সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে ইউটিউবে একটি ভিডিও বেশ ভাইরাল হয়ে উঠেছিল বেশ কয়েকদিন ধরে। এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছিল একজন গ্রাম্য গৃহবধূ ছিপ পেতে মাছ ধরে অসাধারণ কায়দায় সেটি রান্না করেন।। অল্প কয়েক দিনের মধ্যেই গ্রামের মনোরম পরিবেশে তৈরি এই ভিডিওটি এতটাই ভাইরাল হয়ে যায় যে দর্শকেরা প্রচুর প্রশংসা করতে শুরু করে দিয়েছিলেন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে সেই রেসিপি তুলে ধরতে চলেছি। এই ব্যস্ততম সময়ে দাঁড়িয়েও যদি এই ধরনের রান্না কেউ করতে চান তাদের জন্যই রইল আজকের এই প্রতিবেদন।

তাজা রুই মাছ দিয়ে ঝিঙের ঝোলের রেসিপি:

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

এই রেসিপিটি তৈরি করার জন্য যে সমস্ত উপকরণ লাগবে প্রথমেই তা একত্র করে নেবেন যাতে রান্নার সময় আর অসুবিধা না হয়। উপকরণ গুলি হল—তাজা রুই মাছ, ঝিঙে, আলু, হলুদ গুড়া, কাঁচামরিচ, লবণ, সরিষার তেল,আদা বাটা,সরিষা বাটা ,পাচফোড়ন পেঁয়াজ,তেজপাতা ও জিরা বাটা ইত্যাদি।

রন্ধন প্রণালী:
ভালো করে রুই মাছটি কেটে জলে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিন। তারপর মাছের গায়ে লবণ আর হলুদ মাখিয়ে 10 মিনিট সময় পর্যন্ত রেখে দিতে হবে। একটা বড় কড়াইতে পরিমাণমতো রান্নার তেল দিয়ে গরম করে নিন এবং এই মাছগুলোকে ভালোভাবে ভেজে নিন। মাছ ভাজা হয়ে গেলে ওই কড়াইতেই ঝিঙে আর আলু দিয়ে সামান্য ভেজে নিন। এবার এগুলোকে একটি আলাদা পাত্রে তুলে রাখুন।

পরবর্তী ধাপে করাইতে তেল গরম করে আদা বাটা, জিরা বাটা, কাঁচা লঙ্কা, টমেটো, হলুদ গুঁড়া, লবণ মিশিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নিন। কিছুক্ষণ পরে তে আলু যোগ করুন এবং অল্প জল দিয়ে যতক্ষণ না আলু সেদ্ধ হয়ে যাচ্ছে অপেক্ষা করতে থাকুন। সেদ্ধ হওয়ার কাজ হয়ে গেলে একটা অন্য পাত্রের মধ্যে ঝোলসহ আলু ঢেলে রেখে দিতে হবে।

আবারো কড়াইতে কিছুটা পরিমাণ তেল দিয়ে দিন।তেলে পাঁচফোড়ন,পেঁয়াজ, তেজপাতা দিয়ে বাগার তৈরি করে নিতে হবে। উপকরণ গুলো ভাজা হয়ে গেলে সেই কড়াইতে রেখে দেওয়া আলুর ঝোল ঢেলে দিতে হবে। কিছুক্ষণ ফুটিয়ে নেওয়ার পর, মাছ এবং ঝিঙে গুলো এই মিশ্রণের মধ্যে যোগ করুন। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে উপরে সরিষা বাটা দিয়ে কিছুক্ষণ চুলায় রেখে নামিয়ে ফেলতে হবে।

অবশ্যই মনে রাখবেন সরষে বাটা দেওয়ার পর খুব বেশিক্ষণ চুলায় বা গ্যাসে বসিয়ে রেখে দেবেন না তাহলে কিন্তু একটু তেতো ভাব চলে আসতে পারে। ব্যাস স্ট্যান্ডিংস টাইম শেষ হয়ে গেলে গরম গরম ঝিঙের ঝোল দিয়ে রুই মাছের এই রেসিপিটি পরিবেশন করুন। শীতকালে গরম ভাতের সাথে এই রেসিপি খেতে কিন্তু এক কথায় অসাধারণ লাগবে। প্রতিবেদনটি পড়ার পর কোথাও অসুবিধা হলে অবশ্যই সঙ্গে থাকা ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন।

Back to top button