মুখের স্বাদ বদলাতে এই সহজ ঘরোয়া ট্রিকসে বানিয়ে দেখুন ভেজ রোল, খেতে এতো টেস্টি যে ভুলতে পারবেন না স্বাদ

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাঙালির হেসেলে প্রতিনিয়তই নানান ধরনের রেসিপি খোঁজ পাওয়া যায় যেগুলো জিভে জল এনে দিতে বাধ্য করে। সকালের জলখাবার থেকে শুরু করে রাতের ডিনার পর্যন্ত প্রায় সময় আমরা কিন্তু নানান ধরনের পরীক্ষামূলক রান্না করে থাকে। যদিও আজকে আমরা আপনাদের সাথে কোন রকম পরীক্ষামূলক রেসিপি শেয়ার করতে চাই না। একেবারে সাধারণ রুটি তরকারির ধাচে তৈরি একটি রেসিপি আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করব।। সকালের জল খাবার বা বিকেলের টিফিনে এটা খেতে দারুন লাগবে।

আবার বাড়ি থেকে কোথাও দূরে গেলে আপনারা এটা টিফিন হিসেবে নিয়ে যেতে পারেন।প্রতিদিন একঘেয়ে রুটি তরকারি খেতে খেতে বাচ্চারাও কিন্তু একটু খাবারে অনীহা দেখায়। এই রেসিপিটি বানিয়ে দিলে তারাও খুব মজা করে খাবে আর খাবারের প্রতি বিরক্ত হবেনা। শীতকালীন বিভিন্ন সবজি দিয়ে আজ আমরা আপনাদের কিভাবে ভেজ রোল তৈরি করতে হয় সেই সম্পর্কেই বলবো। এতে আপনারা কিন্তু রুটি আর সবজি খাওয়ার স্বাদও খুব সহজেই পেয়ে যাবেন তবে একটু ভিন্নভাবে। চলুন তাহলে দেরি না করে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

ভেজরোল তৈরির রন্ধন প্রণালী :

এই রেসিপিটা তৈরি করার জন্য আপনারা আটা আর ময়দা দুটোই সহজে ব্যবহার করতে পারেন। তবে আটা যেহেতু একটু বেশি স্বাস্থ্যকর তাই এটা দিয়েই তৈরি করা ভালো। একটা পাত্রে পরিমাণ মতো আটা নিয়ে তাতে সামান্য পরিমাণে নুন আর ক্রাশ করে নেওয়ার জোয়ান যোগ করে দিন। তারপর ময়ানের জন্য আপনাদের দিয়ে দিতে হবে রিফাইন অয়েল। সবকিছু খুব ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। তারপর অল্প করে উষ্ণ গরম জল দিয়ে আপনাদের আটা ধীরে ধীরে মেখে নিতে হবে। ডো মাখা হয়ে গেলে ৫ থেকে ৬ মিনিট এটাকে আপনাদের রেস্টে রাখতে হবে।

এবার এই টিফিনের যে ফিলিং প্রয়োজন সেটা এই সময়ের মধ্যে আপনাদের তৈরি করে নিতে হবে। তার জন্য একটা পাত্র নিয়ে বাঁধাকপি কেটে সেটাই নিয়ে নিন। এখানে অনেক রকমের সবজি আপনারা ব্যবহার করতে পারেন নিজেদের পছন্দমত। বাঁধাকপির সাথে আপনাদের যোগ করতে হবে গ্রেট করা আলু, গ্রেট করা গাজর, কাঁচা লঙ্কা কুচি, এক চামচ গ্রেট করা আদা এবং স্বাদমতো লবণ। বিশেষভাবে উল্লেখ্য আমরা যে সমস্ত সবজির কথা বললাম আপনারা সেগুলো পছন্দ না থাকলে কোনটা বাদ দিয়ে পরিবর্তে অন্য কিছু দিতে পারেন। ধরুন গাজরের পরিবর্তে আপনারা ব্যবহার করলেন ফুলকপি।

সমস্ত উপকরণকে এবার আপনাদের একসাথে মিশিয়ে নিতে হবে। এবার এই স্টাফিং টাকে তিন থেকে চার মিনিটের জন্য একটু ঢাকা দিয়ে রেখে দিন। অন্যদিকে যে ডো তৈরি করে রেখেছিলেন সেটাকে হাত দিয়ে আরেকটু মথে নিতে হবে। তারপর এখান থেকে লেচি কেটে আপনাদের ধীরে ধীরে সুন্দরভাবে রুটি তৈরি করে নিতে হবে। রুটি তৈরি করা হয়ে গেলে এর মধ্যে যে ফিলিং তৈরি করে রেখেছিলেন সেটাকে দিয়ে দিন।। একটু বেশি করে দিয়ে ফিলিং ছড়িয়ে দেবেন যাতে খেতে ভালো লাগে।। এবার রুটির রোল তৈরি করে কভার করে নেবেন।

এবার একটা ঝাঁঝরা বাটি ব্যবহার করে আপনাদের এই রোল গুলোকে প্রথমে স্টিম করে নিতে হবে কিছুক্ষণ।স্টিম করা হয়ে গেলে গ্যাসে একটা প্যান বসিয়ে তাতে কিছুটা পরিমাণ তেল নিয়ে নিন। তারপর এই প্রত্যেকটা রোলকে এক এক করে এই তেলের মধ্যে ভেজে ফেলুন। ব্যাস ভাজা সম্পূর্ণ হলেই একেবারে পছন্দের সবজি দিয়ে ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি হয়ে যাবে ভেজ রোল। সুস্বাদু এই রেসিপিটি কিন্তু আপনারা সকালের বা বিকেলের টিফিনে খাবার পাশাপাশি স্কুল কলেজে বা অফিসের টিফিনেও পরিবেশন করতে পারেন।। বাড়িতে বানানোর পর এই রেসিপি খেতে কেমন লাগলো তা অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না।

Back to top button