এক টুকরো কুমড়ো ও মুসুর ডাল দিয়ে খুব সহজ ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে দেখুন এই সুস্বাদু ও লোভনীয় রেসিপি, খেলেই বলবেন অসাধারণ!

নিজস্ব প্রতিবেদন: বরাবর থেকেই বাঙালির হেসেল কিন্তু রসনা তৃপ্তির জন্য জনপ্রিয়। নানান ধরনের সুস্বাদু খাবার খেতে আমরা সকলেই ভালোবাসি। তবে আজকালকার ব্যস্ততম জীবনে হয়তো আর প্রতিনিয়ত নতুন রান্না করার সময় হয়ে ওঠেনা। তবে ছুটির দিনগুলোতে বা ফাঁকা সময় কিন্তু সহজেই কিছু নতুন রেসিপি ট্রাই করা যেতে পারে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে যেমন আমরা নিয়ে চলে এসেছি কুমড়ো ও মসুর ডালের একটি বিশেষ রেসিপি। অত্যন্ত অল্প সময়ের মধ্যে এটা তৈরি করা যাবে। চলুন স্টেপ বাই স্টেপ এটি তৈরি করার পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

এই রান্নাটি করার জন্য প্রথমেই একটা মিক্সিং বোল নিয়ে তাতে ১০০ গ্রাম পরিমাণে মসুর ডাল ভিজিয়ে রাখতে হবে। একটা মিডিয়াম সাইজের কুমড়ো টুকরো নিয়ে সেটাকে গ্রেট করে ফেলুন। মোটামুটি ১০ মিনিট সময় পরে মসুর ডাল গুলোকে জল থেকে তুলে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে। এবার এই ডাল মিক্সিং জারের মধ্যে নিয়ে পেস্ট তৈরি করে ফেলুন। খেয়াল রাখবেন পেস্ট যেন শুকনো আর ঘন হয়। মসুর ডালের এই পেস্টের মধ্যে এবার গ্রেট করে নেওয়া কুমড়ো যোগ করুন। তারপর একে একে এতে একটা বড় সাইজের কুচনো পেঁয়াজ, স্বাদমতো লবণ, পরিমাণ অনুযায়ী হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কার গুঁড়ো, গরম মসলার গুঁড়ো, কাচালংকা কুচি আর সামান্য চিনি দিয়ে দেবেন।

সমস্ত উপকরণগুলোকে ভালো করে মিশিয়ে ফেলুন। যদি নিরামিষ দিনে বানিয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে পেঁয়াজ ব্যবহার করার দরকার নেই। মেশানো হয়ে গেলে গ্যাসে একটা কড়াই বসিয়ে তাতে বেশ কিছুটা পরিমাণ তেল ঢেলে গরম করে নিন। এবার মিশ্রণ থেকে কিছুটা করে অংশ নিয়ে তেলে ছাড়তে থাকুন এবং দুই দিক ভালো করে ভেজে নিন। ফ্রাই করা সম্পূর্ণ হলেই কিন্তু মসুর ডালের এই পকোড়া তৈরি হয়ে যাবে।। শীতের দুপুরে বা রাতে গরম ডাল ভাতের সাথে এই রেসিপি আপনারা বানিয়ে পরিবেশন করতে পারেন। বাচ্চা থেকে বড় সবাই পছন্দ করবে আর বারবার খেতে চাইবে। অবশ্যই কিন্তু নিজেদের অভিজ্ঞতা আমাদের সাথে শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

Back to top button